ইসলামের দৃষ্টিতে বায়’আত বা মুরীদ হওয়ার ব্যাপারে কুরআন ‍সুন্নাহ কি বলে? (পর্ব ৩)

0
171

 

বায়আতে ইরাদতের বর্ণনা:

বায়আত ই ইরাদত হচ্চে নিজ ইচ্ছা ও স্বাধীনতা হতে একেবারেই বের হয়ে সত্যিকার আল্লাহর সান্নিধ্যেপ্রাপ্ত পীর ও মুর্শিদের হাতে নিজেকে সম্পূর্ণরূপে সপে দেয়া।একমাত্র তাঁকে নিজের হাকেম, মালিক ও পরিচালক হিসেবে জানা, তাঁর প্রদর্শিত পথ নিয়েই তরীকতের পথে চলা, তাঁর অনুমতি ছাড়া এ পথে কোন কদম না রাখা। তাঁর কোন নির্দেশ বা কাজ কাজের কাছে সটিক মনে না হলে তা খিযির (আ.)’র কর্মের মতো মনে করা এবং সঠিক মনে না হওয়াকে নিজের বিবেকের ত্রুটি বলে জানা, তাঁর কোন কথাতে অন্তরেও প্রশ্ন উত্থাপন না করা।

এই বায়আতের উৎপত্তি:

এই বায়আতের ইরাদাত রাসুলাল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে সর্ব প্রথম সাহাবায়ে কিরাম গ্রহণ করেছেন। এটাই আল্লাহ তাআলা পয্যন্ত পৌঁছায়।যেমন, হযরত উবাদাহ ইবন সামিত আনসারী (রা.) ইরশাদ করেছেন-‘আমরা রাসুলাল্লাহ (দ.) হতে এ মর্মে বায়আত গ্রহণ করেছি যে, সকল সহজ ও কঠিন সকল খুশি ও দুঃখে তাঁর নির্দেশ মান্য করবো। এবং আনুগত্য করবো আর নির্দেশদাতার কোন আদেশের বিরোধিতা করবো না (বুখারী, আস সহীহ, কিতাবুল ফিতান)।রাসুল (দ.) এর নিকট তাঁর সমস্ত সাহাবীরা বায়আতে অংশগ্রহণ করতেন। এ রাসুল (দ.) এর যুগে আমরা সাহাবীরাই শুধু বায়আত হতাম না। বরং “নিশ্চয় এক মরুবাসী আরবও রাসুল (দ.)’র কাছে বায়াত হন” (তিরমিযী, আস সুনান, ৫/৪২৪পৃ. হাদিসনং ৩৮৭১, বাংলাদেশ তাজ কোম্পানী, ঢাকা)। ইমাম তিরমিযী হাদিসটি উল্লেখ করার পর বলেন, এ বিষয়ে হযরত আবু হুরায়রা (রা.) এরও হাদিস রয়েছে। রাসুল (দ.)ও বায়আত না হওয়া ব্যক্তিদের প্রতি খুবই কঠিন হুশিয়ারী করেছেন। যেমন আবদুল্লাহ ইবনে উমর (রা.) হতে বর্ণিত রাসুল (দ.) ইরশাদ ফরমান-“যে ব্যক্তি ইমামের আনুগত্য থেকে হাত গুটিয়ে নিল, সে কিয়ামত দিবসে আল্লাহর সাথে এমতাবস্থায় সাক্ষাত করবে, তার হাতে কোন দলিল থাকবে না। যে ব্যক্তি এমতাবস্থায় মৃত্যুবরণ করলো যে, তার গলায় বায়আতের বেড়ি থাকলো না, সে জাহেলীয়াতের মৃত্যুতে মৃত্যুবরণ করলো” (মুসলিম, আস সহীহ, কিতবুল ইমারাত, ৩/১৪৭৮পৃ. হাদিস নং ১৮৫১; খতিব তিবরিযী, মিশকাত, কিতাবুল ইমারাত, ৩/৫পৃ. হাদিস নং ৩৬৭৪, দারুল কুতুব ইলমিয়্যাহ, বয়রূত; আহমাদ, আল মুসনাদ, ২/১৫৪পৃ.)।

সম্মানিত পাঠকবৃন্দ! উক্ত হাদিসে বায়আত না হওয়া বা অস্বীকারকারী ব্যক্তিদের হাশরের ভয়াবহ অবস্থা বর্ণনা করেছেন, তারপরও এক শ্রেণীর নামধারী আলেমরা বায়আত হওয়া বিষয়টিকে অস্বীকার করে থাকে। চলবে—

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here