রনিকে মুক্ত করতে প্রয়োজনে হরতাল অবরোধের মাধ্যমে চট্টগ্রামকে বিচ্ছিন্ন করা হবে

0
162

পি নিউজ ডেস্ক : চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনিকে মুক্তি না দিলে হরতাল অবরোধের মত কর্মসূচিতে যেতে বাধ্য হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগ।
চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি’র বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্রমূলক ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত মামলা প্রত্যাহার পূর্বক নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে ছাত্রলীগের চলমান আন্দোলনে শৃঙ্খলিত মিছিল করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ চট্টগ্রাম মহানগর। মিছিলটি নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে শুরু হয়ে লালদিঘী প্রদক্ষিণ করে চট্টগ্রাম কারাগারের সম্মুখ গেইটে এসে বিক্ষোভ সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়। এ সময় ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দরা নিজেদেরকে শিখলে জড়িয়ে নুরুল আজিম রনিকে মুক্ত করার জন্য স্বেচ্ছায় কারাবরণের অঙ্গীকার প্রকাশ করেন।
এ সময় বক্তারা বলেন, আজকের দিনে এসে সাধারণ জনগণের কাছে এটা স্পষ্ট যে নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি ষড়যন্ত্রের শিকার। বিএনপি জামায়াত শিবিরের দোসররা তার অতি মাত্রায় জনপ্রিয়তা এবং সাংগঠনিক কর্মকান্ডের প্রতি ঈর্ষান্বিত হয়ে তার বিরুদ্ধে এই অপ কূটকৌশলের জাল বুনেছে। সাধারণ জনগণ আজ স্পষ্ট বুঝতে পেরেছে কেন তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে? চট্টগ্রামের সাধারণ শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে সারা বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা উপজেলার সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলন থেকে এটি স্পষ্ট প্রতীয়মান হয় যে, নুরুল আজিম রনির মুক্তির দাবী আজ প্রতিটি গণমানুষের দাবী। সমগ্র বাংলায় নুরুল আজিম রনি’র মুক্তির দাবীতে গণ জোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। তাই প্রশাসনের কাছে বিনীত অনুরোধ অনতিবিলম্বে নুরুল আজিম রনিকে নিঃশর্ত মুক্তি দেওয়া হোক। অন্যথায় এই গণ জোয়ার যে কোন সময় গণ বিপ্লবে পরিণত হতে পারে।
এ সময় তারা আরও বলেন, নুরুল আজিম রনি‘র মুক্তির দাবীতে আজ আমরা শিকল পড়ে রাজপথে নেমে এসেছি। প্রশাসনের কাছে আমাদের অনুরোধ হয় নুরুল আজিম রনিকে এই মিথ্যা ষড়যন্ত্রমুলক গ্রেফতার থেকে মুক্তি দিন অন্যথায় আমাদেরকেও ঐ কারাগারের অন্ধকার প্রকোষ্ঠে নিক্ষেপ করুন।
এ সময় তারা নতুন আন্দোলনের রুপরেখা তুলে ধরে বলেন, অনতিবিলম্বে সকল ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলা প্রতাহার পূর্বক নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনিকে নিঃশর্ত মুক্তি দিন। অন্যথায় হরতাল অবরোধের মত কর্মসূচির মাধ্যমে সারা বাংলাদেশকে চট্টগ্রাম থেকে বিচ্ছিন্ন করে দিবে সাধারণ শিক্ষার্থী এবং সাধারণ জনগণ।
নগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু’র সভাপতিত্বে উক্ত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা হাবিবুর রহমান তারেক, ইলিয়াছ উদ্দিন, আবদুর রহিম জিল্লু, নগর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি জয়নাল উদ্দিন জাহেদ, আ ফ ম সাইফুদ্দিন, আমজাদ হোসেন, নোমান চৌধুরী, নাঈম রনি, শাহীন মোল্লা, সোমেন বড়ুয়া, শাহীন জোবায়ের বাপ্পী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর, সুজন বর্মণ, সাংগঠনিক সম্পাদক খোরশেদ আলম মানিক, আমির হামজা, সম্পাদক তপু বড়ুয়া, আকতার হোসেন সৌরভ, মিনহাজুল আবেদীন সানি, আরিফুল ইসলাম।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন নগর ছাত্রলীগের উপ সম্পাদক এম এ হালিম মিথু, শেখ সরফুদ্দিন সৌরভ, এম আর হৃদয়, ফরহাদ আনোয়ার চৌধুরী তপু, কাজী মাহমুদুল হাসান রনি, মিজানুর রহমান মিজান, সহ সম্পাদক এহসানুল কবির ববি, নাদিম উদ্দিন, সদস্য আরাফাত রুবেল, আরজু ইসলাম বাবু, ওমর গণি এম.ই এস বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগ নেতা রাজেশ বড়ুয়া, শহিদুল ইসলাম শহিদ, রেজাউল করিম লিটন, তোফায়েল আহমেদ মামুন, সৈয়দ আনিসুর রহমান, সরফুল আনাম জুয়েল, সরকারি সিটি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগ নেতা রাজীব চৌধুরী, কফিল উদ্দিন, কফিল কর, সাইফুল্লাহ সাইফ, আশিষ সরকার, ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগ নেতা বিকাশ দাশ, এম ডি আবিদ, ওয়াহিদুল্লাহ চৌধুরী, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মাহমুদুল করিম, মনির ইসলাম হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মায়মুন উদ্দিন মামুন, সাইফুদ্দিন মানিক, ফখরুজ্জামান আল ফয়সাল, আশেকানে আউলিয়া ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগ নেতা আমিনুল করিম প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here