চার মাযহাবের যেকোনো একটির ওপর আমল করা বাধ্যতামূলক: ইমাম আযম কনফারেন্সে বক্তারা

0
242

ইকবাল হোসেন আলক্বাদেরী: রাবেত্বায়ে উলামায়ে আহলে সুন্নাত বাংলাদেশ এর উদ্যোগে চট্টগ্রাম নগরীর মুসলিম হলে ইমাম আযম কনফারেন্স ১ জুন বুধবার বিকেলে অনুষ্ঠিত হয়। জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আল্লামা  হাফেজ সোলাইমান আনসারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কনফারেন্সে প্রধান অতিথি ছিলেন বর্ষীয়ান আলেমে দ্বীন উস্তাজুল উলামা পীরে তরিকত আল্লামা মুফতি ইদ্রিচ রজভি (মজিআ)। কনফারেন্সে বক্তারা বলেন, চার মাযহাবের যেকোনো একটির ওপর আমল করা বাধ্যতামূলক। যুগে যুগে উলামায়ে কেরাম ও বুজুর্গানে দ্বীন বিশুদ্ধ মাযহাবের ওপর প্রতিষ্ঠিত ছিলেন ও রয়েছেন। অথচ আজ যুগবরেণ্য ইমাম আযম আবু হানিফার হানাফি মাযহাবসহ বিশুদ্ধ মাযহাবগুলোর বিরুদ্ধে ইসলামের মূলধারা থেকে বিচ্যুত মহল ইচ্ছাকৃত বিষোদগার করে যাচ্ছে।

যুগ যুগ ধরে চর্চিত ইসলামী আচার-অনুষ্ঠানের বিকৃতি ঘটিয়ে মুসলমানদেরকে ঈমান-আক্বিদাচ্যুত করার অপপ্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে পথহারা মাযহাব বিরোধী মহল। বক্তারা বলেন, আহলে হাদিস নামে কথিত ইসলামপন্থী উপদল বিশুদ্ধ হাদিসগুলোর ব্যাপারে বিতর্ক সৃষ্টি করে মুসলমানদের বিভ্রান্ত ও ঈমানহারা করছে। নাভির ওপর হাত বাঁধা, নামাজের বিভিন্ন পর্যায়ে বারবার হাত তোলা, জামাতের সঙ্গে নামাজ আদায়কালে সূরা ফাতিহা পড়ার পর অনাবশ্যক সত্তে¡ও জোরে  আমিন বলা ইত্যাদিতে হানাফি মাযহাবের অনুমোদন নেই। তবুও এসব ব্যাপারে লা মাযহাবি আহলে হাদিসরা বাড়াবাড়ি করে যাচ্ছে। মাযহাববিরোধী এসব অপতৎপরতার মাধ্যমে মুসলমানদের মধ্যে অনৈক্য সৃষ্টির প্রয়াস রুখে দাঁড়াতে বক্তারা সুন্নি উলামা-জনতার প্রতি আহবান জানান। মাওলানা ইকবাল হোছাইন আলকাদেরীর সঞ্চালনায় কনফারেন্সে স্বাগত বক্তব্য দেন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক মাওলানা আবুল হাসান মুহাম্মদ ওমাইর রজভী।

বিভিন্ন বিষয়ে নির্ধারিত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার প্রধান ফকিহ আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আলকাদেরী, আল্লামা কাযী মঈন উদ্দীন আশরাফী, আল্লামা আবুল কাশেম নূরী, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ড. আল্রামা এ.কে.এম. মাহবুবুর রহমান, উপাধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি আবুল কাশেম ফজলুল হক, অধ্যাপকআল্লামা জালাল উদ্দিন আল আযহারী, আল্লামা মুফতি বখতিয়ার উদ্দিন আলকাদেরী, অধ্যক্ষ আল্লামা তৈয়্যব আলী, পীরজাদা মাওলানা গোলামুর রহমান আশরফ শাহ্, আলহাজ্ব মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম খান, অধ্যক্ষ মাওলানা ইসমাইল নোমানী, অধ্যক্ষ বদিউল আলম রেজভী, মাওলানা আবুল আসাদ মুহাম্মদ জোবাইর রেজভী, বিশিষ্ট দানবীর শেখ আহমদ, মুহাম্মদ মাহবুব এলাহী শিকদার, মুহাম্মদ সাদেক হোসেন পাপ্পু, মাওলানা জসিম উদ্দিন মাহমুদ, রাজনীতিবিদ মুহাম্মদ এনামুল হক ছিদ্দিকী, আ ব ম খোরশিদ আলম খান, সৈয়দ মুহাম্মদ আবু আজম, মুহাম্মদ শফিউল আলম শফি, মাওলানা সাঈদুল হক কাজেমী, মাওলানা মুহাম্মদ সেকান্দর হোসাইন আলকাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ যুননুরাইন, মাওলানা নাছির উদ্দিন নেছারী, মাওলানা আবুল কাশেম তাহেরী, মাওলানা মুখতার আহমদ রজভী, শাহজাদা খাজা মাসুম বিল্লাহ, মাওলানা খায়রুল আলম চিশতি,  মাওলানা শওকত হোসাইন রেজভী, মাওলানা সৈয়দ আসরারুল হক আনোয়ারী, মাওলানা মুহাম্মদ এনাম রেজা, মাওলানা ওয়াহিদ কাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ সাইফুল বারী, মাওলানা সৈয়দ নুর মোহাম্মদ আলকাদেরী, মাওলানা সোহাইল আনসারী, মাওলানা এমদাদুল ইসলাম কাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ গোলাম কিবরিয়া, এইচ.এম. শহীদুল, মুহাল্লাহ, মুহাম্মদ নুরুল্লাহ রায়হান খান, মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম, হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ, মুহাম্মদ আলী আকবর, মুহাম্মদ আব্দুল কাদের রুবেল, মুহাম্মদ সরওয়ার উদ্দিন চৌধুরী, মুহাম্মদ রিয়াজ হোসাইন, মুহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম চৌধুরী, মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, শায়ের মুহাম্মদ মাছুমুর রশিদ প্রমুখ।

প্রধান অতিথি আল্লামা মুফতি ইদ্রিচ রজভি বলেন, যারা মাযহাব মানে না তারা নিঃসন্দেহে পথভ্রষ্ট। লা মাযহাবী বাতিলদের ঈমান আক্বিদা বিরোধী অপতৎপরতার ব্যাপারে মুসলিম জনতাকে সতর্ক থাকতে হবে। তিনি সুন্নি ছাত্র-উলামা-জনতাকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বাতিলদের অপতৎপরতা মোকাবেলার আহবান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ আল্লামা হাফেজ সোলাইমান আনসারী বলেন, বর্তমানে ফিতনা ফাসাদ খুব বেড়ে গেছে। যুগ যুগ ধরে আমরা যে বিশ্বাস ও চিন্তাধারা ধারণ করে আসছি, এসবের বিরুদ্ধে বাতিল ফেরকাগুলো ইচ্ছাকৃত বিষোদগার চালিয়ে যাচ্ছে। নতুন প্রজন্মই এদের প্রধান টার্গেট। বাতিল ফিরকার খপ্পর থেকে যুব তরুণসহ সর্বস্তরের মুসলমানদের ঈমান-আক্বিদা রক্ষায় বুদ্ধিবৃত্তিক, সাংগঠনিকসহ বহুমাত্রিক পদক্ষেপ নিতে হবে। সালাত সালাম শেষে দেশ ও জাতির শান্তি কল্যাণ কামনায় মুনাজাত করা হয়। হাজারো দ্বীনদার জনতা কনফারেন্সে অংশগ্রহণ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here