জাতির এ ক্রান্তিলগ্নে সহযোগীতার নামে তামাশা বন্ধ করুন!

0
115

এটাকেই বলা হয় রিয়েল ত্রাণ বিরতণ। এতদিন দেশে এ ধরণের ছবিই আশা করেছিলাম। আলহামদুলিল্লাহ! আজ সত্যি সত্যিই পেয়ে গেলাম নারায়ণগঞ্জের নরপদি গ্রামে। প্রবাসীদের অর্থায়নে ২শ’ পরিবারকে ২৫ কেজি করে চাল বিতরণ করলেন, নারায়ণগঞ্জ নরপদী সমাজ কল্যাণ সংস্থা’। বাকীগুলোকে আমি ত্রাণ হিসেবে দেখি না। এসবকে আমার কাছে স্যুটিং মনে হয়। ত্রাণের নামে ভোট খোঁজার দৃশ্য মনে হয়। চোরের উপর বাটপারি এবং দানবীর সাজার দৌড় প্রতিযোগীতা ভয়ানক ফটোস্যুট মনে হয়।

এমনিতেই ওরা ত্রাণের নামে তামাশা করেই যাচ্ছে, সেখানে আলোচিত হতে আবার বলে কি? মধ্যবিত্তদের কোন প্রয়োজন হলে, এ নাম্বারে ফোন করবেন। তখন তাদের এ কথা শুনে অনেক মধ্যবিত্ত পরিবার সরল মনে, দুর্দিনে সহযোগীতার প্রত্যাশায় গোপনে তাদের কাছে ফোন নাম্বার ও ঠিকানা দিয়ে যোগাযোগ করে। আবার অনেকই ওরা কি ধরণের সহযোগীতা করছে, তা দেখার আগ্রহ নিয়ে বসে আছে। আমিও মধ্যবিত্তদের কি সহযোগীতা করেছে, তা দেখার জন্য চোখ রাখি, বিভিন্ন খবর মাধ্যম ও স্যোশাল মিডিয়ায়।

পরে স্যোশাল মিডিয়ার বদৌলতে দেখতে পাই, ২-৫ কেজি চাল, এককেজি আলু, এক কেজি পেয়াজসহ এককেজি করে এভাবে কয়েকটি পদ মিলে, আমার মনে হয় ঐ পোটলায় ৫০০ টাকার খাদ্য সামগ্রীও হবে না। যা অনেক পরিবারের এক দিনের খাবার। এ ত্রাণ দেখেই তাদের উদ্দেশ্য বুঝতে আর বাকী থাকে নি। আরে ভাই, লকডাউনে মানুষ ঘর থেকে বের হতে পারছে না।

যারা দৈনিক ২-৫ পাঁচ হাজার টাকা পয্যন্ত ইনকাম করে, অসহায়ের পাশে দাড়াতো, আজ তারা ঘরবন্দি। ইনকামের চাকা একেবারে বন্ধ হয়ে আছে। এ ধরণের পরিস্থিতির মুখোমুখি হবে, ওরা কখনও ভাবে নি। সরকার ও প্রশাসন দেশের স্বার্থে, ওদেরকে ন্যুনতম ১৪ দিন ঘর থেকে বের না হতে বাধ্য করছে। আর আপনারা এ দূর্বলতার সুযোগ নিয়ে, সহযোগীতার নামে করছেন নানান তামাশা।

সহযোগীতার যদি করতেই হয়, তাহলে অন্তত এ ১৪ দিনের খাবার তো দিতে হবে। এটাকে জাকাত ফিতরা ও খয়রাত মনে করলে তো হবে না। এটা পরিস্থিতি মোবাবেলার সহায়ক হিসেবে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর উদ্যেগ নিয়েছেন ভাবতে হবে। আপনি কি মনে করেন, এ ৫শ টাকার জন্য কোন মধ্যবিত্ত পরিবার নিজের মান-ইজ্জত সম্মানকে বিলিয়ে দিবে? যেখানে মাসের পর মাস কষ্ট করে, খেয়ে-না খেয়ে চলতে পারছে, সেখানে নিশ্চয়ই আপনাদের দু’একদিনের ত্রাণ নামক তামাশার থলেটিও না নিয়ে, খব চলতে পারবে। তাই সহযোগীতা করলে, করার মতোই করুন। দয়া করে, জাতির এ ক্রান্তিলগ্নে সহযোগীতার নামে তামাশা বন্ধ করুন।

বি:দ্র: ছবিতে নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানাধীন কলাগাছিয়া ইউনিয়নের নরপদী গ্রামে প্রবাসীদের অর্থায়ণে, নরপদী সমাজ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগেে আজ শনিবার বিকেল ৪টায় করোনাতংকে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ করার দৃশ্য।
-এম এ আক্কাছ নূরী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক, pnewsbd.com
চট্টগ্রাম ব্যুরো চীফ, দৈনিক বর্তমান কথা