কাল থেকে ট্রেন চলাচল শুরু, টিকিট বিক্রি অনলাইনে

0
105

পিনিউজ ডেস্ক:

করোনা মহামারীর কারণে দুই মাসেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর আগামীকাল রোববার থেকে সীমিত পরিসরে ট্রেন চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

শনিবার রেলভব‌নে সংবাদ স‌ম্মেলন করে মন্ত্রী জানান, আগামীকাল রোববার থেকে সোনার বাংলা এক্সপ্রেস, সূবর্ণ এক্সপ্রেস, কালনী, পাহাড়িকা এক্সপ্রেস, বনলতা এক্সপ্রেস, চিত্রা এক্সপ্রেস, পঞ্চগড় এক্সপ্রেস ও লালমনি এক্সপ্রেস ঢাকার বাইরে চলাচল করবে।

রেলমন্ত্রী আরও বলেন, রেলের ভাড়ছে না। সব টিকিট অনলাইনে বিক্রি হবে। ট্রেনের খাবার ব্যবস্থা থাকবে না। ট্রেনের এক দরজা দিয়ে উঠতে হবে এবং নামতে হবে অন্য দরজা দিয়ে।

এছাড়া আগামী ৩ জুন থেকে ১১টি ট্রেন চলাচল করবে বলে জানান নুরুল ইসলাম সুজন।

এই ট্রেনগুলো হচ্ছে- ঢাকা দেওয়ানগঞ্জবাজার রুটে তিস্তা এক্সপ্রেস, ঢাকা-বেনাপোল রুটে বেনাপোল এক্সপ্রেস, ঢাকা-চিলাহাটি রুটে লসাগর এক্সপ্রেস, খুলনা-চিলাহাটি রুটে রূপসা এক্সপ্রেস, খুলনা-রাজশাহী রুটে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস, রাজশাহী-গোয়ালন্দ ঘাট রুটে মধুমতি এক্সপ্রেস, চট্টগ্রাম-চাঁদপুর রুটে মেঘনা এক্সপ্রেস, ঢাকা-কিশোরগঞ্জ রুটে কিশোরগঞ্জ এক্সপ্রেস এবং ঢাকা-নোয়াখালী রুটে উপকূল এক্সপ্রেস।

এদিকে, রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা আনসার আলী জানান, করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে মন্ত্রী মহোদয় ৫০ শতাংশ বা অর্ধেক ট্রেনের টিকিট বিক্রির নির্দেশনা দিয়েছেন। সে হিসেবে সুবর্ণেএক্সপ্রেস ট্রেনে ৮৯৯টি সিটের যাত্রী যাবেন ৪৫০জন, উদয়নে ৫৯৬টি সিটের যাত্রী যাবেন ২৯৮ জন, আর সোনার বাংলায় ৫৮৪টি সিটের পরিবর্তে যাত্রী যাবেন ২৯২ জন।

‘সব মিলিয়ে রোববার তিন ট্রেনে ১০৪০ জন যাত্রী ভ্রমণ করবেন। প্রত্যেক যাত্রীর স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করা হবে।’

উল্লেখ্য, করোনার কারণে গত ২৫ মার্চ থেকে অভ্যন্তরীণ রুটে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে মালবাহী ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।