দেশে চিকিৎসকের ১১ হাজার পদ শূন্য

0
33

পিনিউজ ডেস্ক:

সারা দেশে সরকারি চিকিৎসকের ১১ হাজার ৩৬৪টি পদ শূন্য রয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি শূন্য পদ ঢাকা জেলায়।

সোমবার জাতীয় সংসদের সরকারি দলের সংসদ সদস্য মামুনুর রশীদ কিরণের এক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ তথ্য জানান।

কোভিড-১৯ মহামারীতে দেশে চিকিৎসক সঙ্কট প্রকট হয়ে দেখা দেওয়ায় তড়িঘড়ি নিয়োগের উদ্যোগ নেওয়া হয়।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, ৪২তম বিসিএসের মাধ্যমে ২ হাজার চিকিৎসকের শূন্যপদ পূরণের কার্যক্রম চলমান। এছাড়া ৩৮তম বিসিএসের মাধ্যমে ২৯০ জন, ৪০তম বিসিএসের মাধ্যমে ২৬০ জন, ৪১তম বিসিএসের মাধ্যমে ১০০ জন নিয়োগের কাজও চলছে।

স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উপস্থাপিত হয়।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী চিকিৎসকের জেলাওয়ারি শূন্য পদের পরিসংখ্যান দিয়েছেন। সে অনুযায়ী, দেশের ৬৪ জেলার সবকটিতেই চিকিৎসকের পদ ফাঁকা রয়েছে।

সবচেয়ে বেশি পদ ফাঁকা ঢাকায় ৩ হাজার ১৮৫টি। আবার মন্ত্রী বলেছেন, ওএসডি চিকিৎসকের সংখ্যা বেশি থাকায় ঢাকায় বাড়তি চিকিৎসক দেখানো হয়েছে।

কোন জেলায় কত শূন্য পদ

ঢাকায় তিন হাজার ১৮৫টি পদ, ফরিদপুরে ২৭৮টি, গাজীপুরে ১২৫টি, গোপালগঞ্জে ২৮৩টি, কিশোরগঞ্জে ২৩৭টি, মাদারীপুরে ৪২টি, মানিকগঞ্জে ২১৪টি, মুন্সিগঞ্জে ৯১টি, নারায়ণগঞ্জে ৫৩টি, নারসিংদী ৫২টি, রাজবাড়ীতে ৭৪টি, শরীয়তপুরে ৭৮টি, টাঙ্গাইলে ৯০টি, জামালপুরে ১৫৬টি, ময়মনসিংহে ৩১১টি, নেত্রকোনায় ১২০টি, শেরপুরে ৪৭টি, বান্দরবানে ৪২টি, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৭৫টি, চাঁদপুরে ৫৬টি, চট্টগ্রামে ৩৪৬টি, কুমিল্লায় ২২৬টি, কক্সবাজারে ১৩৪টি, ফেনীতে ৪৮টি, খাগড়াছড়িতে ৩৭টি, লক্ষ্মীপুরে ৩৪টি, নোয়াখালীতে ৯৮টি, রাঙ্গামাটিতে ৬০টি, বগুড়ায় ২৬৫টি, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৫০টি, দিনাজপুরে ৩৩৩টি, গাইবান্ধায় ৭৬টি, জয়পুরহাটে ৬১টি, কুড়িগ্রামে ৯০টি, লালমনিরহাটে ৬৪টি, নওগাঁয় ১১৯টি, নাটোরে ৪৯টি, নীলফামারীতে ১২৫টি, পাবনায় ১২৪টি, পঞ্চগড়ে ৭৬টি, রাজশাহীতে ২৩৩টি, রংপুরে ২৬১টি, সিরাজগঞ্জে ১৬১টি, ঠাকুরগাঁওয়ে ৭৩টি, বাগেরহাটে ১২৪টি, চুয়াডাঙ্গায় ২১টি, যশোরে ১২৩টি, ঝিনাইদহে ৭৭টি, খুলনায় ৩৯৬টি, কুষ্টিয়ায় ১০৭টি, মাগুরায় ৫০টি, মেহেরপুরে ৪৫টি, নড়াইলে ৪৯টি, সাতক্ষীরায় ১৬৫টি, বরগুনায় ৯৪টি, বরিশালে ৪৩৮টি, ভোলায় ৯২টি, ঝালকাঠীতে ৩৭টি, পটুয়াখালীতে ১৮৭টি, পিরোজপুরে ৭৮টি, হবিগঞ্জে ৫৫টি, মৌলভীবাজারে ৬৩টি, সুনামগঞ্জে ১৩১টি এবং সিলেটে ৩৩১টি।