পরিপূর্ণ ইসলামী শরিয়ত সম্মত পর্দার নিয়মাবলী: হাফেজা সিদরাতুল মুন্তাহা মিম

0
113

 

অনেক মা-বোনই পর্দা করেন, কিন্তু অনেকে জানেনই না শরিয়ত সম্মত পরিপূর্ণ পর্দা কাকে বলে? এর জন্য কি কি শর্ত রয়েছে? তাই পূর্ণ পর্দার শর্তাবলি তাদের জন্য উল্লেখ করা হলো যারা মহান আল্লাহ পাক উনার ভয়ে পর্দা করেন।

(১) কোন জরুরী প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হলেঃ এক্ষেত্রে মাথা থেকে পা পর্যন্ত পূর্ণ শরীর আবৃত করা, মুখ ও চোখের উপর নেকাব রাখা, হাত মোজা ও পা মোজা পরিধান করা।

(২) বোরকার কাপড় ভালো ও শালীন হওয়া, আকর্ষণীয় কারুকাজ ও নকশা না থাকা। অর্থাৎ বোরকা আকর্ষণীয় না হওয়া। আজকাল বিভিন্ন প্রিন্টের বোরকা পাওয়া যায় যথা সম্ভব এগুলো থেকে এড়িয়ে থাকা। তদ্রূপ কালো কাপড়ের উপর আকর্ষণীয় কাজও যেনো না হয়।

(৩) বোরকার কাপড় মোটা হওয়া। এমন পাতলা না হওয়া যে, শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ দেখা যায়।

(৪) অধিক ঢিলাঢালা বোরকা হওয়া। এমন আঁটসাঁট না হওয়া যে, বোরকা শরীরের সাথে লেগে থাকে কিংবা পরিধানের পর শরীরের কোন অঙ্গ প্রকাশ পায়।

(৫) বাইরে বের হওয়ার সময় সুগন্ধি ব্যবহার না করা। এটাও শরঈ পর্দার অংশ।

(৬) এমন অলংকার পরে বাইরে না যাওয়া, যা পরিধান করে চললে আওয়াজ হয়। যেমন-নুপুর, কাঁচের চুড়ি ইত্যাদি এগুলোও শরঈ পর্দার অন্তর্ভুক্ত।

(৭) চিকন ও লম্বা হিল বিশিষ্ট জুতা পরিধান না করা। যেনো চললে স্বাভাবিকতা বজায় থাকে।

(৮) উঁচু করে খোপা বা চুল না বাঁধা।

(৯) গায়রে মাহরামের সাথে অপ্রয়োজণীয় কথা বলা ও সালাম দেওয়া-নেওয়া থেকে বিরকত থাকা। একান্তই জরুরী প্রয়োজনে বলতে হলে কোমলতা পরিহার করা কঠিন কর্কশ কন্ঠে কথা বলা।

(১০) সফরসম দূরত্বে কিংবা ফেতনার আশংকা থাকলে মাহরাম পুরুষের সঙ্গে যাওয়া।

মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদের সকল মুসলিম মা বোনকে পরিপূর্ণভাবে পর্দা করার তৌফিক দান করুক। আমিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here