রোয়ানু’র তান্ডবে নিহতদের প্রতি ছাত্রসেনার শোক প্রকাশ

0
107
 এম এস আই নেজামী (নিজস্ব প্রতিবেদক):  বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা চট্টগ্রাম মহানগর উত্তরের সভাপতি ছাত্রনেতা মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ছাত্রনেতা মুহাম্মদ আব্দুল কাদের রুবেল ও সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম চৌধুরী আজ ২১ মে বিকালে এক যুক্ত শোকবার্তায় ঘূর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’র প্রভাবে সৃষ্ট জ্বলোচ্ছাসে সারাদেশে উপকূলীয় অঞ্চলে নিহতদের প্রতি গভীর শোক ও মহান আল্লাহ দরবারে মাগফিরাত কামনা করেছেন এবং শোক সন্তপ্ত পরিবার ও আহত এবং বাস্তুহারাদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন। নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, উপকূলীয় অঞ্চলে পরিকল্পিত উন্নয়ন না হওয়া বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে সাধারণ মানুষের কোটি কোটি টাকার সম্পদ নষ্ট হয়েছে। তাই ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে সরকারের পক্ষ থেকে সহায়তা করতে হবে। নেতৃবৃন্দ দুর্যোগ মোকাবেলায় কার্যকরি পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। উল্লেখ্য- চট্টগ্রাম, ভোলা ও পটুয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, কক্সবাজার, চাঁদপুর, ঝালকাঠি, বরিশালসহ উপকূলীয় জেলাগুলোতে ঝড়ে শতাধিক মানুষ আহত হওয়ার পাশাপাশি ঘরবাড়ি ও সম্পদের ক্ষয়ক্ষতির খবর এসেছে।অনেক পরিবার নিজেদের ঘরবাড়ী হারিয়ে খোলা আকাশের নিচে অসহায় রাতযাপন করছে। ঝড়ো হাওয়ার দাপট শুরু হয়েছিল শনিবার ভোর রাত থেকেই; সেই সঙ্গে বৃষ্টি। বেলা দেড়টার দিকে ঘূর্ণিঝড়টি চট্টগ্রামের কাছ দিয়ে উপকূল অতিক্রম করে। এরপর ঝড়ের দাপট চলে আরও কয়েক ঘণ্টা। ঘূর্ণিঝড়ের কারণে চট্টগ্রামে মা-ছেলেসহ ১৩ জন, নোয়াখালীর হাতিয়ায় জোয়ারে ভেসে মা-মেয়েসহ তিনজন ও ফেনীর সোনাগাজীতে এক রাখাল,কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় চাপা পড়ে ও নৌকার ধাক্কায় তিনজন, ভোলার তজমুদ্দিন ও দৌলতখানে ঘরচাপা পড়ে তিনজন, পটুয়াখালীর দশমিনায় এক বৃদ্ধা এবং লক্ষ্মীপুর সদরে গাছ উপড়ে একজনের মৃত্যু সহ সর্বমোট ২৬জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর কারণে মৃতের এই সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে গত তিন বছরে আঘাত হানা প্রায় একই শক্তির দুই ঘূর্ণিঝড় ‘কোমেন’ ও ‘মহাসেন’ এ মৃতের সংখ্যাকেও। গত বছরের জুলাইয়ে প্রায় একই শক্তির ঘূর্ণিঝড় ‘কোমেন’ এর আঘাতে কক্সবাজার, পটুয়াখালী, ভোলা ও নোয়াখালীতে চার জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়। আর ২০১৩ সালের মে মাসে আঘাত হানা একই মাত্রার ঘূর্ণিঝড় ‘মহাসেন’ এ প্রাণ যায় ১২ জনের। এর মধ্যে বরগুনায় পাঁচজন, পটুয়াখালীতে তিন ও ভোলায় চারজন নিহত বলে জানা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here