বাড়বে ওজন নিয়ম না মেনে ফল খেলে

0
162

পি নিউজ ডেস্ক : বিভিন্ন মৌসুমী ফল খেতে সবাই ভালোবাসে। আর সুস্বাস্থ্যের জন্য ফলের বিকল্প নেই। মেদ ঝরাতে নিয়মিত ফল খাওয়া উচিত। তবে ফল খাওয়ার নিদিষ্ট সময়ও আছে। চিকিৎসকদের মতে, সঠিক নিয়ম মেনে ফল না খেলে হিতে বিপরীত হতে পারে। এতে কিন্তু ওজন কমার বদলে বেড়ে যেতে পারে। জেনে নিন কিভাবে ফল খাওয়া উচিত-
১। ভরা পেটে: অনেকেরই ধারনা খাওয়ার পর ফল খেলে হজম ভাল হয়। এই ধারনা সম্পূর্ণ ভুল। খাওয়ার পর ফল খেলে তা হজম হতে অনেক সময় লাগে। ফল হজম না হয়ে অনেকক্ষণ পেটে থাকলে বুক জ্বালা, ঢেকুরের সমস্যা দেখা দেয়। ওজনও বাড়ে। তাই ভরা পেটে ফল না খেয়ে খালি পেটে ফল খান। এতে ফলের প্রয়োজনীয় উপাদান, জল, ফাইবার সহজে হজম হবে। শরীরের পক্ষেও ভাল।

২। খাবারের সঙ্গে: খাবারের সঙ্গে ফল খাওয়া ভরা পেটে ফল খাওয়ার মতোই মারাত্মক। এর থেকেও ওজন বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এক সঙ্গে অনেক রকম ফল খেতে পারেন। কিন্তু অন্য কোনও খাবারের সঙ্গে ফল খাবেন না।

৩। সকালে উঠে: অনেকেই মনে করেন সকালে উঠে খালি পেটে ফল খেলে অ্যাসিডিটি হয়। এটা মোটেও ঠিক নয়। সকালে উঠে খালি পেটে ফল খাওয়া সবচেয়ে ভাল অভ্যাস। এতে শরীর ফল থেকে সবচেয়ে বেশি উপকৃত হয়। হজম ভাল হয়। ফলের মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট শরীরের টক্সিন দূর করতেও সাহায্য করে।

৪। খাওয়ার মাঝে: ফল খাওয়ার আসল নিয়ম খাওয়ার আগে ও পরে। সাধারণত আমরা দিনে তিন বার(ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ, ডিনার) ভরপেট খেয়ে থাকি। ফল খেতে হলে ভরপেট খাওয়ার এক ঘণ্টা আগে বা দু’ঘণ্টা পর খান। তবে খাবারের পরিমাণের উপর ফল খাওয়ার সময়ও নির্ভর করবে। যদি খুব ভারী খাবার খান তাহলে অন্তত তিন থেকে চার ঘণ্টা পর ফল খান। যদি সালাড বা হালকা কোনও খাবার খেয়ে থাকেন তবে দেড় ঘণ্টা পরই ফল খেতে পারেন।

৫। ঘুমানোর আগে: ঘুমোতে যাওয়ার আগে ফল খাওয়া অবশ্যই এড়িয়ে চলুন। ফলের মধ্যে থাকা শর্করা আপনার এনার্জি লেভেল বাড়িয়ে দেবে। ফলে ঘুম আলতে দেরি হবে বা মাঝে মাঝেই রাতে ঘুম ভেঙে যেতা পারে।

৬। দুধের সঙ্গে: ছোট থেকেই শেখানো হয় দুধের সঙ্গে ফল খেতে নেই। কথাটা অনেক ক্ষেত্রেই সত্যি। নারকেলের দুধ বা বাদাম মিল্ক, ইয়োগার্টের সঙ্গে ফল খেতে পারেন। তবে অল্প পরিমাণে। বাদাম মিল্কের সঙ্গে একটা আপেল খেতেই পারেন। ড্রাই ফ্রুটের সঙ্গেও দুধ খাওয়া চলতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here