কাল টেকনাফ পৌরসভার নির্বাচন, সব কেন্দ্রই ঝুকিপূর্ণ

0
108

পি নিউজ ডেস্ক : কক্সবাজার জেলার টেকনাফ পৌরসভার নির্বাচন আগামী বুধবার অনুষ্ঠিত হচ্ছে। নির্বাচনে সবকটি কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন উপজেলা প্রশাসন। সোমবার মধ্য রাত থেকে সকল প্রকার প্রচারণা বন্ধ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে দু’জন কাউন্সিলর প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনীত প্রার্থী ছাড়া বিএনপিসহ কোনো দল থেকে মনোনয়নপত্র দাখিল করেনি।
টেকনাফ উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্যমতে, টেকনাফ পৌরসভার মেয়র পদে দুই জন, তিনটি নারী সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৮ জন ও সাতটি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদের জন্য ৩১ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন। এর মধ্যে দু’জন কাউন্সিলর প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। টেকনাফ পৌরসভায় ভোটার সংখ্যা ১৩ হাজার ৩১৪ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৬ হাজার ৯৫৬ জন ও নারী ভোটার ৬ হাজার ৩৫৮ জন।
কক্সবাজার জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও টেকনাফ পৌরসভা নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মোজাম্মেল হোসেন জানান, নির্বাচনে মেয়র পদে ৫ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। এরা হলো- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ ইসলাম, স্বতন্ত্র মুহাম্মদ ইসমাইল, জাহাঙ্গীর আলম, মো. হাশিম ও এসএমএ ফারুক বাবুল। ২ মে বাছাইয়ে মো. হাশিম ও এসএমএ ফারুক বাবুল আয়কর সনদ জমা না দেওয়ায় তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। ৮ মে জাহাঙ্গীর আলম এবং ৯ মে মুহাম্মদ ইসমাঈল মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন। এতে পৌরসভা নির্বাচনে বর্তমান মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ার সম্ভাবনা নিশ্চিত হয়ে পড়ে।
তিনি জানান, কিন্তু উচ্চ আদালতের নির্দেশে প্রার্থিতা ফেরত পায় এসএমএ ফারুক বাবুল। এতে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী এসএমএ ফারুক বাবুল নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছেন। এর আগে কাউন্সিলর পদে ৭ নম্বর ওয়ার্ডে সাংসদ আবদুর রহমান বদির ভাই মুজিবুর রহমান ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডে আবদুল্লাহ মনির বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।
টেকনাফ থানার ওসি মো. আবদুল মজিদ জানান, পৌরসভার সবকটি কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে চিহ্ণিত করা হয়েছে। সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ ও ভোটারদের নিরাপত্তার জন্য চারজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, এক প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাবের তিনটি টহল দল, প্রতি কেন্দ্রে ৮ জন পুলিশ সদস্য এবং ১৪ জন করে আনসার সদস্য মোতায়েন থাকবে।
টেকনাফ উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শফিউল আলম জানান, ভোটাররা নির্বিঘ্নে ভোটাধিকার প্রয়োগ করার জন্য সকল ধরনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। ভোটগ্রহণে নিয়োজিত ৯ কেন্দ্রের জন্য ১০ জন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা, ৪১ জন সহকারী প্রিজাইডিং এবং ৮২ জন পোলিং কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করবেন।
স্থানীয় ভোটাররা জানান, মেয়রপদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে এসএমএ ফারুক বাবুলের নাম শোনা গেলেও এ পর্যন্ত তার কোনো পোস্টারসহ প্রচারণা নেই। এমনকি তাকে মাঠেও দেখা যায়নি। আওয়ামী লীগ দলীয় মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম স্থানীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদির চাচা হওয়ায় অপর প্রর্থী মাঠে নামছে না বলে ধারণা করছেন অনেক ভোটার। কিন্তু ৭টি ওয়ার্ডের কাউন্সিল প্রার্থীরা প্রচার-প্রচারণায় নির্বাচনী মাঠ সরগরম রেখেছেন।
এ ব্যাপারে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী এসএমএ ফারুক বাবুলের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here