ইউপি নির্বাচনে পটিয়া উপজেলার ২১ ইউপির মধ্যে ২০টির ফলাফল ঘোষণা, একটি স্থগিত

0
98

সনজয় সেন (পটিয়া প্রতিনিধি): পটিয়া উপজেলার ২১ ইউপির মধ্যে ২০টির ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। চরপাথরঘাটায় দু’টি কেন্দ্রে নির্বাচন স্থগিত হওয়ায় চূড়ান্ত ফলাফল পাওয়া যায়নি। ঘোষিত ফলাফলে জুলধা ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রফিক আহমদ (আনারস) ৪৫৩৯ পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নুরুল হক (নৌকা) পেয়েছেন ৩৩৩৮। চরলক্ষ্যা ইউনিয়নে মোহাম্মদ আলী (নৌকা) ৯৩২৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইব্রাহিম (ধান) পেয়েছেন ৫৮৯১ ভোট। চরপাথরঘাটা হাজী ছাবের আহমদ (নৌকা) ৫২৭১ ভোট, মাঈনুদ্দিন (ধানের শীষ) ৪৭৩১, দুই কেন্দ্র স্থগিত হওয়ায় ফলাফল ঘোষণা করা হয় নি। শিকলবাহায় আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম (আনারস) ১২৪৭৮ পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আবুল কালাম বকুল (নৌকা) ৬৮৫০ ভোট পেয়েছেন। বড়উঠান ইউনিয়নে দিদারুল আলম (নৌকা) ৮৪৬২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আবদুল মান্নান (আনারস) ৫৩৬২ ভোট। জিরি ইউনিয়নে আবুল কালাম ভোলা (নৌকা) ১১১৩৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আবুল হোসেন বাবুল (ধানের শীষ) পেয়েছেন ৬৪০০ ভোট। কুসুমপুরা ইউনিয়নে ইব্রাহিম বাচ্চু (নৌকা) ১১৫৭২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রেজাউল করিম নেছার (ধানের শীষ) পেয়েছেন ৩০৫১ ভোট। আশিয়া ইউনিয়নে মোহাম্মদ হাশেম (নৌকা) ৪৩৩৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোজাম্মেল হক (ধানের শীষ) পেয়েছেন ২৫২০ ভোট। কাশিয়াইশ ইউনিয়নে আবুল কাশেম (আনারস) ৩৬৯৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামালুস সাত্তার (নৌকা) পেয়েছেন ২৪২০ ভোট। বড়লিয়া ইউনিয়নে শাহিনুর ইসলাম শানু (নৌকা) ৪৮৯২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কায়সার আলম রনি (ধানের শীষ) পেয়েছেন ২৭১১ ভোট। জঙ্গলখাইন গাজী ইদ্রিস (নৌকা) ২৯০৬ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তৌহিদুল আলম (আনারস) ১৫৯৫ ভোট। ওই ইউনিয়নে একটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত হওয়ায় ফলাফলে কাউকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয় নি। হাবিলাসদ্বীপে শফিকুল ইসলাম (ধানের শীষ) ৬৫২৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফৌজুল কবির কুমার (নৌকা) পেয়েছেন ২৮২৪ ভোট। ভাটিখাইন বখতিয়ার উদ্দিন (নৌকা) ৩২২০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রিজুয়ানুর হক আলমদার (ধানের শীষ) পেয়েছেন ১১১৭ ভোট। কোলাগাঁও আহমদ নুর (নৌকা) ৭০০৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সামশুল আলম (ধানের শীষ) পেয়েছেন ৪১৩৯ ভোট। খরনা মাহাবুবুর রহমান (নৌকা) ৩৯৫৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মফজল আহমদ (ধানের শীষ) পেয়েছেন ২৯৭৮ভোট। ধলঘাট রনধীর ঘোষ টুটুল (নৌকা) ৩৫৪৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সেকান্দর (ঘোড়া) পেয়েছেন ২৯৩৭ ভোট। কেলিশহর সরোজ কান্তি সেন নান্টু (নৌকা) ৬৮৫০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জসীম উদ্দিন মাস্টার (ধানের শীষ) পেয়েছেন ৩৭৯৫ ভোট। হাইদগাঁও ইউনুছ মিয়া (ধানের শীষ) ৩৬৪২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো: মহিউদ্দিন (নৌকা) পেয়েছেন ৩৪১২ ভোট। কচুয়াই ইনজামুল হক জসীম (নৌকা) ৬৫৬৪ ভোট, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী খলিলুর রহমান বাবু (ধানের শীষ) ৩৭৯৩। কিন্তু একটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত থাকায় ওই কেন্দ্রের ফলাফলে কাউকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয় নি। ছনহরা ইউনিয়নে আবদুল রশিদ দৌলতি (ধানের শীষ) ৪৫৯৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কামাল উদ্দিন (নৌকা) পেয়েছেন ৩৫০৭ ভোট। সনজয় সেন (পটিয়া প্রতিনিধি )

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here