দিনাজপুরে শ্লীলতাহানির পর ৭ম শ্রেণীর ছাত্রীকে কান ধরে ঘুরিয়েছেন স্কুল শিক্ষক তপু রায়

0
100

পি নিউজ ডেস্ক: এবার দিনাজপুরে শ্লীলতাহানির পর ৭ম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে কান ধরে স্কুল ক্যাম্পাস ঘুরিয়েছেন রিজ স্কুলের শিক্ষক তপু রায়। স্কুলের চেয়ারম্যানের নির্দেশে অন্যায়ভাবে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে বলে তার অভিভাবকরা অভিযোগ করেছেন। ঘটনার প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে উঠেছে দিনাজপুর শহর। জড়িত ওই শিক্ষকসহ তার অপকর্মকে আড়ালের চেষ্টাকারীদের গ্রেফতার ও উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে শহরে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। অভিভাবকসহ জেলার বিভিন্ন স্তরের নারী-পুরুষ এতে যোগ দেন। অভিযোগ উঠেছে, একজন মন্ত্রীর আশীর্বাদপুষ্ট আওয়ামী নেতৃবৃন্দের ছত্রছায়ায় ওই স্কুলের শিক্ষক তপু রায়, প্রধানশিক্ষক সমৃত সাহা সেতু ও চেয়ারম্যান অলিউর রহমান নয়ন এমন অপকর্মের ধৃষ্ঠতা দেখিয়েছেন। এখন অবস্থা বেগতিক দেখে চেয়ারম্যান ঢাকায় অবস্থান করছেন এবং যেকোনো সময় বিদেশ পাড়ি দিতে পারেন বলে অভিযোগ ওঠেছে।
সোমবার সকালে শহরের ব্যস্ততম কালিতলা সড়কে দিনাজপুর সচেতন নারী সমাজের ব্যানারে এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। পরে তারা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন। কর্মসূচি চলাকালে ওই ছাত্রীর অভিভাবকসহ বক্তারা জানান, শহরের মুন্সীপাড়া এলাকায় সম্প্রতি প্রতিষ্ঠিত রিজ স্কুলে সকাল ৮টা থেকে ১টা পর্যন্ত এবং বিকাল ৪টা থেকে ৮টা পর্যন্ত দুই শিফটে ক্লাস হয়। গত ২৫ এপ্রিল রাতে ওই ছাত্রীকে শ্রেণিকক্ষে একা পেয়ে বিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা-বিষয়ক শিক্ষক তপু রায় তার শ্লীলতাহানি ঘটান। ওই ছাত্রী বাড়িতে এসে অভিভাবককে জানালে অভিভাবকরা স্কুল কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করে। পরে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সমৃত সাহা সেতু ওই ছাত্রীকে বিদ্যালয়ে আসতে নিষেধ করেন এবং ঢাকা থেকে চেয়ারম্যান এলে বিষয়টি নিয়ে বসা হবে বলে জানান। ক’দিন পর বিদ্যালয়ের চেয়ারম্যান ওলিউর রহমান নয়ন ঢাকা থেকে দিনাজপুরে এলে ওই ছাত্রী ও তার অভিভাবকরা বিদ্যালয়ে যান। কিন্তু চেয়ারম্যান অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি করার অভিযোগে ওই ছাত্রীকে কান ধরে পুরো বিদ্যালয় ঘোরার আদেশ দেয়। অন্যথায় ওই ছাত্রীকে বিদ্যালয়ে রাখা সম্ভব হবে না বলে জানিয়ে দেন। পরে ওই ছাত্রী বাড়িতে এসে অস্বাভাবিক আচরণ করে এবং আত্মহত্যার চেষ্টা করে।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠনসহ উপস্থিত সকলেই ওই ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান। মানববন্ধন শেষে ওই ছাত্রীর অভিভাবক ও নারী নেত্রীরা সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আলেয়া বেগম স্বপ্না। উপস্থিত ছিলেন মেয়ের মা, সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাসমিন লুনা, আইরিন লতিফ, সেলিনা আকতার ছবি, সাহানাজ বেগম সেলি, হাসিনা আক্তার শিউলী ও মাসুদা বেগম মুক্তা প্রমুখ।
এ ঘটনায় কোতয়ালী থানায় মামলা দায়ের করতে গেলেও অদৃশ্য কারণে সেখানে মামলা না নেয়ায় দিনাজপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করা হয়। এ বিষয়ে স্কুলের চেয়ারম্যান ওলিউর রহমান নয়ন সাংবাদিকদের জানান, আমি এখন ঢাকায় আছি। দিনাজপুরে গিয়ে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here