ভক্তদের ঢল নেমেছে মোহছেন আউলিয়ার ওরশে

0
218

আনোয়ারা প্রতিনিধি :
বারো আউলিয়ার মহান অলি হযরত শাহ মোহছেন আউলিয়া (র.) বার্ষিক ওরশ আজ সোমবার দরবার শরীফ প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হবে।এ উপলক্ষে পুরো আনোয়ারাজুড়ে চলছে সাজ সাজ রব।  প্রতি বছর বাংলা মাসের হিসাবে ৬ আষাঢ় এই ওরশ অনুষ্ঠিত হয়। রমজানের এই সময়েও ওরশে আগত ভক্তদের আগ্রহের কমতি নেই। ভক্তদের ভিড় বটতলী মাজার প্রাঙ্গন ছাপিয়ে ছড়িয়ে পড়েছে আশপাশের এলাকায়।
সোমবার কোরানখানি, ফাতেহা, জিকির ও মিলাদ-মাহফিলের মধ্য দিয়ে চলবে প্রধান দিবসের ওরশের দিনব্যাপী আনুষ্ঠানিকতা। ওরশ আয়োজনে যেকোন ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তা ও যান চলাচল নিয়ন্ত্রনে মোতায়েন থাকবে অর্ধশত পুলিশ।
ওরশকে ঘিরে মাজার পরিচালনা কমিটি ছাড়াও উপজেলার ১১ ইউনিয়নের বিভিন্ন সামাজিক, ধর্মীয় সংগঠনের উদ্যেগে পাড়ায় পাড়ায় মাহফিল ও ফাতেহার আয়োজন করা হয়েছে। বটতলীতে মাজার প্রাঙ্গনে হাজার হাজার ভক্ত-অনুরক্তের সমাগমে সৃষ্টি হয়েছে অন্যরকম আবহ।  রোববার সন্ধ্যা থেকে  দূর দূরান্তের ভক্ত অনুরক্তরা গরু, ছাগল, মহিষ ও ভেড়া সহ নানা গৃহপালিত পশু নিয়ে দরগাহ এলাকায় আসতে শুরু করেছে। বর্ণিল সাজে সেজেছে মাজার ও আশ পাশের পুরো গ্রাম। ওরশে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ থেকে শুরু করে আলেমগণের উপস্থিতি ভক্তদের মাঝে বাড়তি অনুপ্রেরণা সৃষ্টি করেছে।
কথিত আছে বারো আউলিয়ার অন্যতম অলি হযরত বাবা বদর আউলিয়া ও বাবা হযরত শাহ মোহছেন আউলিয়া (রহ.) সাগরপথে একসাথে চট্টগ্রামে আগমন করেছিলেন। আধ্যাত্মিক রূহানিয়াতের মধ্যে মামা ভাগিনার এক গভীর সম্পর্ক রয়েছে। রুহানিয়তের সফরে মামা ভাগিনার সফরের কথা বহুকাল ধরে প্রচলিত।সাগর পথে তাদের বহনকারী পাথরটি আজো মাজারে সংরক্ষিত আছে।  এই মহান অলির অসংখ্য কারামত আজো এ অঞ্চলেরর মানুষের মুখে মুখে প্রচারিত। প্রচার রয়েছে ৯৮৫ হিজরী মোতাবেক ৯৭১ বাংলা ৬ আষাঢ় ১৫৬৫ সালে হযরত মোহছেন আউলিয়া (র.) ইন্তেকাল করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here