গরুর গোশত রাখার সন্দেহে প্রকাশ্যে দুই মুসলিম নারীকে নির্মম নির্যাতন

0
146

পি নিউজ ডেস্ক: ভারতের মধ্যপ্রদেশে গরুর গোশত রাখার সন্দেহ করে দুই মুসলিম নারীকে প্রকাশ্যে কিল, চড়, ঘুষি মারল একদল উন্মত্ত জনতা। ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপাল থেকে ৩৫০ কিমি দূরত্বে মন্ডসৌর এলাকার এক স্টেশন চত্বরে।
ওই দুই নারীকে বেধড়ক মারা হচ্ছিল, সেই সময় সেখানে উপস্থিত জনতা সেই ঘটনাটিকে ক্যামেকাবন্দি করতে ব্যস্ত ছিল। পুলিশ ছিল নীরব দর্শকের ভূমিকায়। ওই দুই আক্রান্ত নারীকে সাহায্য করতে সেভাবে কেউই এগিয়ে আসেনি বলে জানা গিয়েছে।
সূত্রের দাবি, ওই স্টেশনে পুলিশ এসে হাজির হয়েছিল, কারণ, তাদের কাছে খবর ছিল দুজন নারী অনেকটা পরিমাণ গরুর গোশত নিয়ে যাচ্ছে বিক্রি করতে। জানা গেছে, ওই দুই নারীর আইনত মাংস বিক্রি করার কোনো অনুমতি ছিল না। পুলিশ ওই দুই নারীকে আটক করার পরও, উন্মত্ত জনতা তাদের পুলিশের হাত থেকে ছিনিয়ে নিয়ে গিয়ে বেধড়ক মারধর করে। নারী দুজনকে মারতে মারতে ‘গো মাতা কি জয়’, এই জাতীয় স্লোগানও দেয়া হয় বলে জানা গেছে।

এক প্রত্যক্ষদর্শীর দাবি, নারীদেরকে প্রায় ৩০ মিনিট ধরে বেধড়ক মারতে থাকে উন্মত্ত লোকজন। এরপর তাদের থেকে ৩০ কেজি মাংস উদ্ধার করে পুলিশ। ডাক্তারের কাছে উদ্ধার করা গোশত পরীক্ষার জন্যে পাঠানোর পর জানা যায় সেটি মোষের গোশত।

এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত আক্রমণকারী বা সেখানে উপস্থিত পুলিশকর্মীদের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। তবে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ভুপেন্দ্র সিংহ জানিয়েছেন, কেউ আইনকে নিজের হাতে তুলে নিতে পারে না। এই ঘটনার তদন্ত হবে, এবং দোষীদের কড়া শাস্তি দেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here