সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ মোকাবেলায় বৃহত্তর সুন্নী ঐক্যের বিকল্প নেই: আল্লামা এম.এ মতিন

0
309

স্টাফ রিপোর্টার: আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটির উদ্যোগে বৃহত্তর কুমিল্লা (কুমিল্লা-চাদঁপুর-বি-বাড়ীয়া), ও ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষীপুর এর সুন্নি ওলামা-পীর মাশায়েখ, বুদ্ধিজীবি ও বিশিষ্ট জনদের সাথে মতবিনিময় ও পরামর্শ সভা আজ বেলা ২.০০টায় কুমিল্লা টাউন হলে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন- চট্টগ্রাম আল আমিন বারিয়া দরবার শরীফের পীর সাহেব মাওলানা সৈয়দ বদরুদ্দোজা বারী (মা:জি:আ:)। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন বিশিষ্ট লেখক ও অনুবাদক বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের সম্মানিত চেয়ারম্যান আল্লামা এম এ মান্নান, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী ও বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মহা-সচিব জননেতা আল্লামা এম.এ মতিন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন- আলহাজ্ব অধ্যক্ষ অলি আহমদ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন- সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ আজ সারা বিশ্বের জন্য মারাত্মক হুমকী হয়ে দাড়িয়েছে। এর মূল কারণ তরুণ ও যুব সমাজের সাথে ইসলামের প্রকৃত শিক্ষার অভাব, দূর্বল ঈমান ও তাকওয়ার অভাব এবং চারিত্রক অধ:পতন। আপোষকামী অবক্ষয়মুখী নেতেৃত্বের কারণে যুব সমাজ আজ দিশেহারা। জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে জাতীয় ঐক্যের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করে জঙ্গীবাদ ইস্যুতে দলাদলী বা দোষারোপের রাজনীতি পরিহার করে দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান। প্রধান বক্তার বক্তব্যে আল্লামা এম. এ মতিন- সাম্প্রতিক গুলশান, শোলাকিয়া ও কল্যানপুরে জঙ্গীহামলা ও তৎপরতা বিবেচনায় দেশ আজ কঠিন পরিস্থিতির স্বীকার। জঙ্গীবাদ আমাদের জাতীয় সমস্যা বটে কিন্তু জঙ্গীবাদ দমনের নামে আমেরিকা বা ভারতের অযাচিত সাহায্য আমরা চাই না। কোরআন-সুন্নাহ বিরোধী অপতৎপরতা মূলোৎপাটন না করে জঙ্গীবাদ দমন সম্ভব নয়। দেশের শিক্ষানীতি প্রণয়নসহ যাবতীয় নীতি নির্ধারণে ওলামা সমাজের অংশ গ্রহনের প্রয়োজনীয়তাকে মূল্য দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি আরও বলেন- টিভি টকশোতে জঙ্গীবাদ আলোচনায় ওলামাদের না নিয়ে নাস্তিক্যবাদী বুদ্ধিজীবিদের নেওয়ায় লাভের চেয়ে ক্ষতিই বেশী হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন এবং আগামী ১২নভেম্বর ঢাকায় ঐতিহাসিক সুন্নী মহা সমাবেশে তরিকত পন্থী সুন্নী জনতাকে যোগদানের আহবান জানান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- পীরে তরিকত আল্লামা ছৈয়দ মছিহুদ্দৌলা, পীরে তরিকত গাজী এম. এ ওয়াহিদ সাবুরী, পীরে তরিকত আলহাজ্ব মাওলানা আবু সুফিয়ান আল-আবেদী, পীরে তরিকত মাও: গোলামুর রহমান আশরাফ শাহ, কুমিল্লা জেলা পরিষদ প্রশাসক বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব ওমর ফারুক, পীরে তরিকত হারুনুর রশিদ, পীরে তরিকত মাওলানা আবদুল বারী জেহাদী, অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ আবদুল মতিন, অধ্যক্ষ ড. মাওলানা মাহবুবুর রহামন, অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ আলী হোছাইন, অধ্যক্ষ মাওলানা আবু জাফর মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন, ড. আবু হোসেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যায়, মুফতি মাও: মহিউদ্দিন লতিফি, আলহাজ্ব আলমগীর খান আল-মাইজভান্ডারী।
বক্তব্য রাখেন, মুফতি আলী আকবর ফারুকী, মাওলানা মুফতি গোলাম মোস্তফা শাহ, আলহাজ্ব মাও: ইব্রাহিম আল কাদেরী, জাফর কুদ্দুস গালীব, ছৈয়দ নাইমুদ্দিন, মাও: মাজহারুল ইসলাম আল-কাদেরী, মাও: এনামুর হক কুতুবী, মাও: গিয়াস উদ্দিন, তাহেরী, শাহজাদা মাহবুব ইলাহ, মো: আবুল হোসেন মোল্লা, কাজী মো: ওয়াছিলুল হক জাভেদ, মো: তাবারুক হোছাইন, মো: মাজহারুল আনোয়ার। জননেতা মাছুম বিল্যাহ মিয়াজী ও যুবনেতা মাওলানা জাহাঙ্গীর আলম তাহেরীর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও সংগঠক গাজী মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম জাবির, মাও: রফিকুল ইসলাম আনছারী, মাও: মো: আমিনুল ইসলাম আকবরী, যুবনেতা মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম সুমন, আলহাজ্ব মুহাম্মদ ওমর ফারুক আল হোসাইনি রেজভী, ছৈয়দ মোহাম্মদ হোসেন, এডভোকেট ইসলাম উদ্দিন দুলাল, পীরে তরিকত কুতুব উদ্দিন শাহেদী বখশী, বিশিষ্ট লেখক মাওলানা জসিম উদ্দিন মাহমুদ, যুবনেতা ছৈয়দ মোহাম্মদ আবু আজম, জননেতা ছাত্রনেতা ছৈয়দ গোলাম কিবরিয়া, মো: শাহিদুল হক মামুন, যুবনেতা মো: মজিবুর রহমান, ছাত্রনেতা ছাদেকুর রহমান খাঁন, এইচ এম শহিদুল্লাহ, নুরুল্লাহ রায়হান খান, মুহাম্মদ ইশতিয়াক রেযা ও জেলা ছাত্রসেনা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক যথাক্রমে মোহাম্মদ মাছুম বিল্লাল মিয়াজী, মাহবুব আলম, রবিউল হক কাউছার প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here