কোরবানি ঈদের দশ রেসিপি

0
233

এবারের ঈদে মজাদার সব খাবার তৈরির জন্য দেখে নিতে পারেন গরু ও খাসির মাংসের ১০টি রেসিপি। গরুর ও খাসির মাংসের এই পদগুলো পরোটা বা ভাতে সঙ্গেও খেতে পারেন।

১. গরুর মাংসের কালো ভুনা রেসিপি

উপকরণ-

গরুর মাংস এক কেজি, আদা বাটা এক টেবিল চামচ, রসুন বাটা এক টেবিল চামচ, কালো গোল মরিচ গুঁড়া এক চা চামচ, দারচিনি গুঁড়া এক চা চামচ, লবঙ্গ গুঁড়া এক চা চামচ, মরিচ গুঁড়া এক চা চামচ, এলাচ গুঁড়া এক চা চামচ, জায়ফল ও জয়ত্রী মিলিয়ে গুঁড়া এক চা চামচ, ভাজা জিরা গুঁড়া এক চা চামচ, সরিষার তেল পরিমাণ মত (চাইলে সয়াবিনও ব্যবহার করা যায়), লবণ স্বাদ মত, পিঁয়াজ ফালি আধা কাপ, কাঁচা মরিচ ইচ্ছা মত

প্রস্তুত প্রণালী

তেল ও পিঁয়াজ ছাড়া সমস্ত উপকরণ দিয়ে মাখিয়ে মাংসকে চুলায় বসিয়ে দিন মাঝারি জ্বালে ঢাকনা দিয়ে। কিছুক্ষণের মাঝেই মাংস থেকে পানি বের হয়ে আসবে এবং আস্তে আস্তে পানি টানতে শুরু করবে ও মাংস সিদ্ধ হয়ে আসবে। চাইলে এই কাজটা প্রেশার কুকারেও করতে পারেন।

মাংস শুকিয়ে এলে নামিয়ে নিন। একটা পাত্রে তেল গরম করে পিঁয়াজ ও কাঁচা মরিচ দিয়ে দিন। কাঁচা মরিচ দেবার সময় মনে রাখবেন যে গোল মরিচ আর লবঙ্গ উভয়েই কিন্তু ঝাল। পেয়াজ একটু ভেজেই মাংস দিয়ে দিন। এবং জ্বাল কমিয়ে রান্না করুন ভাজা ভাজা করে। এমন ভাবে ভাজবেন যেন মাংসের মসলা শুকিয়ে তেলের উপরে ভেশে ওঠে, কিন্তু মাংস যেন শক্ত না হয়ে যায়।

ব্যাস, তৈরি হয়ে গেলো ঘরেই মজাদার কালো ভুনা। খাবার জন্য পুরানো ঢাকা বা চট্টগ্রাম ছুটতে হবে না, ঘরেই বানিয়ে নিতে পারবেন যখন তখন।

২. খাসির নেহারি

উপকরণ

খাসির পায়া টি (পিস করে কাটা), পেঁয়াজ কুচি এক কাপ, হলুদ গুঁড়া এক চা চামচ, মরিচ গুঁড়া এক চা চামচ, জিরা গুঁড়া দুই চা চামচ, ধনে গুঁড়া দুই চা চামচ, আদা বাটা দুই টেবিল চামচ, রসুন বাটা দুই টেবিল চামচ, বড় ও ছোট এলাচ পাঁচটি, দারুচিনি চার টুকরা, তেজপাতা দুটি, লবণ স্বাদ মতো, গরম মসলা গুঁড়া এক চা চামচ, পানি পাঁচ থেকে ছয় কাপ বা ডুবো পানি, সয়াবিন ও সরিষা তেল চার টেবিল চামচ, লবণ পরিমান মতো, টমেটো কুচি দুটি, কাঁচামরিচ পাঁচটি, বাগাড়ের উপকরণ, তেঁতুলের মাড় দুই টেবিল চামচ, রসুন কোয়া- পাঁচটি (ছেঁচে নেওয়া), আটা চার টেবিল চামচ (এক কাপ পানিতে গুলে নিতে হবে)জিরা, ধনিয়া, রাঁধুনি ও মৌরি গুঁড়া এক চা চামচ (টেলে গুঁড়া করতে হবে)বেরেস্তা দুই টেবিল চামচ

প্রস্তুত প্রণালী

সব  বাটা  ও গুঁড়া মসলা, পেঁয়াজ কুচি, টমেটো কুচি, লবণ ও কাচাঁমরিচ পায়াতে  দিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। আন্দাজ মতো ডুবো  পানিতে সেদ্ধ করুন। মাঝারি আঁচে পাঁচ থেকে ছয় ঘণ্টা সেদ্ধ করুন। একদিন আগে সেদ্ধ করে পরের দিন বাগাড় দিলে আরও ভালো হয়। বাগাড় দেওয়ার আগে তেঁতুলের মাড় দিয়ে ৩ মিনিট সেদ্ধ করে নিন।

এবার চার টেবিল চামচ সয়াবিন ও সরিষা তেল মিক্স করে গরম করুন।  তেলে ছেঁচে নেওয়া রসুন ও পেঁয়াজ কুচি দিয়ে ভাজুন। একটু বাদামি হয়ে আসলে টালা গুঁড়া মিশিয়ে পায়াতে ঢেলে দিন । পেঁয়াজ, বেরেস্তা ও গোলানো আটা দিয়ে ৫  মিনিট রেখে নামিয়ে নিন।

৩. শিক কাবাব

উপকরণ

হাড্ডি ছাড়া গরুর মাংস কিউব এক কেজি, নারিকেল পাউডার দুই টেবিল চামচ, ধনে গুঁড়া এক টেবিল চামচ, জিরা গুঁড়া দুই টেবিল চামচ, গরম মসলা গুঁড়া এক টেবিল চামচ, মরিচ গুঁড়া দুই টেবিল চামচ, শুকনা মেথিপাতা এক টেবিল চামচ, গরুর চর্বি ২’শ গ্রাম, পুদিনা পাতা পঞ্চাশ গ্রাম, ধনেপাতা পঞ্চাশ গ্রাম, কাঁচামরিচ পাঁচটি, আদা-রসুন আস্ত বিশ গ্রাম।

প্রস্তুত প্রণালি

সব উপকরণ একসঙ্গে মেখে কিমা করে নিতে হবে। তারপর শিকে ভরে কয়লার চুলায় সেঁকতে হবে। বারবার উল্টিয়ে নিতে হবে।

৪. আফগানি বিফ কাবাব

উপকরণ

গরুর মাংস এক কেজি, আদা বাটা এক চা চামচ, রসুন বাটা এক চা চামচ, পেঁয়াজ বাটা এক টেবিল চামচ, কালো গোলমরিচের গুঁড়া সামান্য, সাদা গোলমরিচের গুঁড়া সামান্য, অলিভ অয়েল দুই টেবিল চামচ, গরম মসলা গুঁড়া আধা চা চামচ, লেবুর রস এক টেবিল চামচা ও লবণ পরিমাণমতো।

প্রস্তুত প্রণালি

প্রথমে একটি ব্লেন্ডারে পেঁয়াজ, আদা, রসুন, লেবুর রস ও অলিভ অয়েল একসঙ্গে মিশিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করুন। এবার একটি বাটিতে মাংস, ব্লেন্ড করা মসলা, কালো গোলমরিচের গুঁড়া, সাদা গোলমরিচের গুঁড়া, গরম মসলা গুঁড়া ও লবণ নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে মেরিনেটের জন্য এক ঘণ্টা ফ্রিজে রেখে দিন। এবার মেরিনেট করা মাংস শিকে গেঁথে কয়লার আগুনে পুড়ে কাবাব তৈরি করে নিন। এবার পুদিনা পাতার সসের সঙ্গে গরম গরম পরিবেশন করুন মজাদার আফগানি বিফ কাবাব।

৫. খাসির রেজালা

উপকরণ

খাসির মাংস হাড় ছাড়া এক কেজি, পেঁয়াজ ২’শ গ্রাম, আদা বাটা তিন টেবিল চামচ, রসুন বাটা তিন টেবিল চামচ, কাজুবাদাম বাটা দুই টেবিল চামচ, তেল পঞ্চাশ গ্রাম, টক দই ১’শ গ্রাম, মরিচ গুঁড়া দুই টেবিল চামচ, টমেটো দুই পিস, এলাচ পাঁচ পিস, তেজপাতা ৫ পিস,

দারুচিনি দশ গ্রাম, জয়ত্রী পাঁচ পিস, জায়ফল আধা পিস,

জিরা গুঁড়া দুই টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো, ধনে গুঁড়া এক টেবিল চামচ, গুঁড়াদুধ ১’শ গ্রাম, ঘি দুই টেবিল চামচ, হলুদ এক টেবিল চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি

হাড় ছাড়া খাসির মাংসের মধ্যে পেঁয়াজ কুচি, আদা-রসুন বাটা, কাজুবাদাম বাটা, টক দই, তেল, লবণ, জায়ফল, জয়ত্রী বাটা, মরিচ গুঁড়া, হলুদ, জিরা গুঁড়া ও ধনিয়া গুঁড়া দিয়ে ভালো করে মাখিয়ে চুলায় বসিয়ে দিন। আস্তে আস্তে নাড়তে নাড়তে রান্না করুন। মাংস সিদ্ধ হলে গরম মসলার গুঁড়া, ঘি এবং ভাজা জিরার গুঁড়া, গুঁড়া দুধ দিয়ে কিছুক্ষণ পর নামিয়ে নিন। একটু বেরেস্তা ছিটিয়ে পরিবেশন করুন খাসির রেজালা।

৬. গরুর ঝাল তেহারি

উপকরণ

গরুর সিনার মাংস দুই কেজি, পেঁয়াজ কুচি দেড় কাপ, আদা বাটা দুই টেবিল চামচ, রসুন বাটা এক চা চামচ, মরিচ গুঁড়ো এক টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়ো এক টেবিল চামচ, ধনে গুঁড়ো এক টেবিল চামচ, জিরা গুঁড়ো এক টেবিল চামচ, গোলমরিচ গুঁড়ো আধা চা চামচ, তেজপাতা দুটি, দারচিনি পাঁচ টুকরো, এলাচ পাঁচটি, লবঙ্গ চারটি, কাঁচামরিচ ষোলোটি, সরিষা বা সয়াবিন তেল সোয়া এক কাপ, পোলাওয়ের চাল এক কেজি।

প্রস্তুত প্রণালী

মাংস ছোট টুকরো করে ধুয়ে নিন। সমস্ত বাটা ও গুঁড়ো মসলা এবং লবণ দিয়ে মাংস সেদ্ধ করুন। মাংস নরম হলে ও পানি শুকালে নামান। একটা বড় হাঁড়িতে তেল গরম করে পেঁয়াজ তেজপাতা ও গরম মসলা সামান্য ভেজে মাংস, লবণ দিন। মাংস কষিয়ে ভুনা করুন। মাংস কষানো হলে মসলা থেকে মাংস আলাদা করে তুলে রাখুন। চাল ধুয়ে পানি ঝরিয়ে মসলায় দিন। দুই থেকে তিন মিনিট ভাজুন। ছয় থেকে সাত কাপ গরম পানি ও লবণ দিন। ফুটে উঠলে নেড়ে মাংস ছড়িয়ে দিয়ে ওপরে কাঁচামরিচ দিয়ে ঢেকে মৃদু আঁচে বিশ মিনিট রাখুন। চুলা থেকে নামিয়ে রাখুন। বিশ থেকে পঁচিশ মিনিট পর ঢাকনা খুলবেন। সালাদ দিয়ে পরিবেশন করুন। তেহারিতে ফুলকপি, মটরশুঁটি ও আলু দেয়া যায়।

৭. আখনি বিরিয়ানি

মাংসের জন্য উপকরণ

গরুর মাংস এক কেজি, তেল আধা কাপ, পেঁয়াজ কুচি এক কাপ, আদা বাটা এক টেবিল চামচ, রসুন বাটা এক চা চামচ, জিরা বাটা এক চা চামচ, ধনে বাটা এক চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, মরিচ গুঁড়া দুই চা চামচ, হলুদ গুঁড়া এক চা চামচ, গোলমরিচ আধা চা চামচ, জায়ফল-জয়ত্রী আধা চা চামচ, মেথি ও মৌরি বাটা আধা চা চামচ, তেজপাতা তিন থেকে চারটা, গরম মসলা বাটা আধা চা চামচ, পেঁয়াজ বাটা দুই টেবিল চামচ, বাদাম বাটা এক টেবিল চামচ।

পোলাওয়ের জন্য

সেদ্ধ চাল এক কেজি, মরিচ গুঁড়া এক টেবিল চামচ, আদা বাটা এক টেবিল চামচ, রসুন বাটা দুই চা চামচ, লবণ পরিমাণ মতো, তেল আধা কাপ, ঘি দুই টেবিল চামচ, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, এলাচি, দারুচিনি কয়েকটা, কাঁচা মরিচ আট থেকে দশটি, কিশমিশ এক টেবিল চামচ, পানি সাত কাপ, কেওড়া তিন টেবিল চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি

মাংসে সব মসলা মেখে আধা ঘণ্টা রেখে তেলে পেঁয়াজ লাল করে ভেজে মাংস ঢেলে দিতে হবে। ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। মাংস সেদ্ধ হওয়ার জন্য প্রয়োজনে পানি দিতে হবে। পানি শুকিয়ে এলে নামিয়ে নিতে হবে। এবার পোলাওয়ের সব মসলা ৭ কাপ পানিতে ফুটিয়ে নিতে হবে। ফুটানো পানিতে চাল ঢেলে পানি শুকিয়ে এলে মাংস দিতে হবে। ভালোভাবে নেড়ে কিশমিশ ও কাঁচা মরিচ দিয়ে কম আঁচে ঢেকে রাখতে হবে। কেওড়া জল দিয়ে নামাতে হবে।

৮. খাসির দম বিরিয়ানি

উপকরণ

খাসির মাংস এক কিলোগ্রাম, বাসমতি চাল দুই কাপ, আদা চার টুকরা, রসুন কোয়া বিশটি, দই দুই কাপ, কাঁচা মরিচ কুচি দুটি, মরিচ গুঁড়া দুই চা চামচ, হলুদ গুঁড়া এক চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, পেঁয়াজ চারটি (কুচি করে ভেজে নিন), লবঙ্গ ছয়টি, দারুচিনি এক টুকরা, কাঁচা এলাচ পাঁচটি, শুকনো এলাচ একটি, গোলমরিচ দশটি, শাহি জিরা পাউডার আধা চা চামচ, এলাচ গুঁড়া আধা চা চামচ, গরম মসলা দুই চা চামচ, ধনেপাতা কুচি এক কাপ, পুদিনা পাতা কুচি আধা কাপ, অলিভ অয়েল পাঁচ টেবিল চামচ, জাফরান দেওয়া দুধ দুই চা চামচ, গোলাপ জল এক চা চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি

অর্ধেক আদা ও রসুন ভালো করে মিশিয়ে নিন। কিছু আদা স্লাইস করে কাটুন। খাসির মাংসের সঙ্গে দই, আদা, রসুন, কাঁচা মরিচ, মরিচ গুঁড়া, হলুদ গুঁড়া, লবণ, পেঁয়াজ কুচি ভাজা, লেটুসপাতা মিশিয়ে নিন। লবঙ্গ, দারুচিনি, কাঁচা ও শুকনো এলাচ, গোল মরিচ, লবণ পাতলা রুমালে বেঁধে রাখুন। কড়াইয়ে ৫ কাপ পানি দিয়ে রুমালে বাঁধা মসলা দিন। এরপর লবণ, শাহি জিরা পাউডার এবং চাল দিয়ে আধা সিদ্ধ হওয়া পর্যন্ত রান্না করুন। ঢাকনা খুলে অর্ধেক চাল উঠিয়ে মাঝখানে গর্ত করে মেরিনেড করা মাংস দিয়ে বাকি চাল দিয়ে ঢেকে দিন। আধা ঘণ্টা পর নামিয়ে পরিবেশন করুন।

৯. গরুর মাংসের হাড়ি কাবাব

উপকরণ

হাড়ছাড়া গরুর মাংস এক কেজি, টকদই সিকি কাপ, কাঁচা পেঁপে বাটা বা রস এক টেবিল চামচ, হলুদগুঁড়া আধা চা চামচ, আদাবাটা এক টেবিল চামচ, রসুনবাটা এক চা চামচ, জিরাবাটা এক চা চামচ, ধনেবাটা এক চা চামচ, মরিচবাটা এক চা চামচ, পেঁয়াজকুচি আধা কাপ, গোলমরিচ গুঁড়া এক চা চামচ, গরম মসলার গুঁড়া এক চা চামচ, জায়ফল ও জয়ত্রি গুঁড়া আধা চা চামচ, দারচিনি চার টুকরা, এলাচ চারটি, তেজপাতা দুটি, লেবুর রস এক টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বেরেস্তা পৌনে এক কাপ, লবণ স্বাদমতো, তেল আধা কাপ, চিনি আধা চা চামচ, কাঁচামরিচ ছয় থেকে সাতটি।

প্রস্তুত প্রণালি

মাংস পাতলা করে কেটে সব বাটা মসলা ও দই দিয়ে মাখিয়ে এক ঘণ্টা রাখুন।চুলায়দেওয়ার আগে সেই মাংস লবণ ও পেঁপের কষ দিয়ে মাখান। তেল গরম করে পেঁয়াজ ভেজেতাতে মাখানো মাংস, তেজপাতা, দারচিনি, এলাচ দিয়ে ভালো করে কষান। মাংস তেলেরওপর এলে লেবুর রস, কাঁচা মরিচ, জায়ফল-জয়ত্রি গুঁড়া, গরম মসলা গুঁড়া, বেরেস্তা দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে নামান।

১০. গরুর মেজবানি মাংস

উপকরণ

গরুর মাংস দুই কেজি, পেঁয়াজ কুচি এক কাপ, রসুন বাটা এক টেবিল চামচ, হলুদ ও মরিচ গুঁড়ো এক টেবিল চামচ, ধনে ও জিরা গুঁড়া এক টেবিল চামচ, সরিষার তেল এক কাপ, মাংসের মসলা এক চা চামচ, টক দই এক কাপ, কাঁচামরিচ দশ থেকে বারটি, গোলমরিচ এক চা চামচ দারচিনি ও এলাচ পাচঁ থেকে ছয়টি, জয়ফল ও জয়ত্রী আধা চা চামচ, মেথি গুঁড়া এক চা চামচ, লবণ স্বাদ মতো।

প্রস্তুত প্রণালী

মাংস ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। একটি পাত্রে মাংস, তেল, টক দই, হলুদ, মরিচ, আদা, রসুন, পেঁয়াজ, লবণ ও সব মসলা নিয়ে মেরিনেট করে রাখুন। অর্ধেক পেঁয়াজ তেলে ভেজে বেরেস্তা করে নিন।

চুলায় হাঁড়ি বসিয়ে মেরিনেট করা মাংস কষাতে থাকুন। হাঁড়িতে দুই কাপ পরিমাণ পানি দিয়ে আরো কিছুক্ষণ কষাতে হবে। মাংস থেকে পানি ঝরে গেলে মৃদু আঁচে মাংস সিদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত রান্না করুন।

মাংসের পানি শুকিয়ে এলে কাঁচামরিচ, ধনে, জিরা গুঁড়া দিয়ে মৃদু আঁচে দশ মিনিট দমে রেখে নামিয়ে পেঁয়াজ বেরেস্তা দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন সুস্বাদু গরুর মেজবানি মাংস।

 (সব ধরণের খবর মুহুর্তে পেতে পি নিউজ পেইজে লাইক দিন)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here