বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে সিলেট নগরী উত্তাল!

0
141

পি নিউজ ডেস্ক: সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করার প্রতিবাদে আন্দোলনের নগরীতে রূপ নিয়েছে সিলেট। হামলাকারী শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক বদরুল আলমের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে রাজপথে মিছিল, সমাবেশ ও মানববন্ধনে শামিল হচ্ছে প্রতিবাদী জনতা।

বুধবার থেকেই সিলেট নগরীর বিভিন্ন স্থানে একের পর এক প্রতিবাদ কর্মসূচীতে এক কাতারে দাঁড়িয়েছেন সর্বস্তরের জনতা। তারা বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানাচ্ছেন।

এদিকে খাদিজার উপর হামলার বিচার দাবিতে সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী-শিক্ষকেরা বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় সিলেটের জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দিয়েছেন।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নগরীর চৌহাট্টাস্থ মহিলা কলেজের ক্যাম্পাসের সামনে জড়ো হয় ছাত্রীরা। সেখান থেকে বিক্ষোভ মিছিলসহ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে যান তারা।

আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক ফজিলাতুন্নেছা বলেন, হামলাকারী বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছি। আমরা বুধবার নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সড়ক অবরোধ করি। সেখান থেকেই জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদানের সিদ্ধান্ত হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার স্মারকলিপি প্রদান করি।

এদিকে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে খাদিজা আক্তার নার্গিসের এলাকার সিলেট সদর উপজেলার হাউশা এলাকায় বিশাল মানবন্ধন করেন এলাকাবাসী। মানববন্ধনে হামলাকারী বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানানো হয়। মানববন্ধনে দলমত নির্বিশেষে সকলে অংশ নেন।

দুপুর ১২টার দিকে নগরীর কোর্ট পয়েন্টে এশিয়া ছিন্নমূল মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা মানববন্ধন করে। বক্তব্য রাখেন সিসিক কাউন্সিলর শামীমা স্বাধীন, সংগঠনের পরিচালক রেহেনা জলিল শিরিন প্রমুখ।

এদিকে খাদিজা আক্তার নার্গিসের উপর হামলার খবর শুনে সৌদি আরব থেকে ফিরেছেন বাবা মাসুক মিয়া ও চীনে মেডিকেল সায়েন্সে অধ্যয়নরত খাদিজার বড় ভাই শাহীন আহমদ।

ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নেমেই তারা সরাসরি চলে যান স্কয়ার হাসপাতালে। ভোর ৬টায় খাদিজার বাবা ও সকাল ১১টায় তার ভাই বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। খাদিজার ভাই নুর আহমদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে বুধবার সিলেট সদর উপজেলার তেমুখীতে মানববন্ধনে সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদসহ, আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেন। ওই দিন সিলেট নগরীতে অন্তত ৭টি স্থানে মানববন্ধন হয়।

সোমবার বিকেলে সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে প্রকাশ্যে কুপিয়ে জখম করে শাবি ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক বদরুল আলম। পরে খাদিজাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও রাতে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। হামলাকালে এমসি কলেজের শিক্ষার্থীরা বদরুলকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। এ ঘটনায় হামলাকারী বদরুলকে আসামি করে শাহপরান থানায় খাদিজার চাচা আবদুল কুদ্দুস বাদী হয়ে মামলা করেন। বুধবার আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন বদরুল।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here