মাইক্রোবাসে ইমার্জেন্সি রোগী স্টিকার লাগিয়ে কক্সবাজার যাত্রা: ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা

0
71

পিনিউজ ডেস্ক:

মাইক্রোবাসে ইমার্জেন্সি রোগী স্টিকার লাগিয়ে চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার যাওয়ার সময়  চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে মাইক্রোবাস আটক ও জরিমানা করা হয়েছে।

শনিবার(২৩মে) বিকাল ৫ টার দিকে নগরীর বাকলিয়ার শাহ আমানত কর্ণফুলী ব্রীজের উপর জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ তৌহিদুল ইসলাম ভ্রাম্যমাণ আদালত এ  অভিযান চালায়।

এসময় চট্টগ্রাম শহর ছেড়ে দক্ষিণ চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলাসহ বান্দরবান এবং কক্সবাজার অভিমুখী প্রায় ১৫ টি মোটরবাইকের চাবি জব্দ করা হয়। মোটরবাইকের যাত্রী এবং চালকদের কে নিজ নিজ বাড়িতে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

অভিযান চালানোর সময় একটি মাইক্রোবাস আটক করা হয়। মাইক্রোবাসের গায়ে ইমারজেন্সি রোগী স্টিকার লাগানো ছিলো। কিন্তু পুলিশ দিয়ে মাইক্রোবাসটি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তল্লাশী করে দেখেন মাইক্রোবাসের মধ্যে সবাই যাত্রী।

শাহ আমানত ব্রীজের মাথায় ট্রাফিক পুলিশকে ফাঁকি দিয়ে মাইক্রোবাসটি ব্রীজের মাঝপথে আসলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ তৌহিদুল ইসলামের নিকট মাইক্রোবাস ড্রাইভার এবং যাত্রীদের প্রতারণার বিষয়টি ধরা পড়ে।

এ অপরাধে ড্রাইভারকে আর্থিক সামর্থ্য বিবেচনায় এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। মাইক্রোবাসের কক্সবাজার অভিমুখী তিনটি পরিবারের যাত্রীদেরকে চট্টগ্রাম শহরে তাদের নিজ বাসায় ফেরত পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য , ব্যক্তিগত গাড়ির অপব্যবহার করে এবং গাড়ির গায়ে “ইমারজেন্সি রোগী” সহ বিভিন্ন ভুয়া স্টিকার লাগিয়ে অপকৌশলে অনেকে প্রাইভেট কার এবং মাইক্রোবাস ভাড়া করে চট্টগ্রাম শহর ছেড়ে দেশের বিভিন্ন জেলায় যাচ্ছে। একই গাড়িতে কয়েকটি পরিবারের সদস্যরা দীর্ঘপথ ভ্রমণ করলে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি প্রবল।

জেলা প্রশাসন চট্টগ্রামের পক্ষ থেকে চট্টগ্রামের বিভিন্ন প্রস্থান পয়েন্টে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কঠোর নজরদারি রয়েছে।