“আসুন করোনা ভাইরাসের সাথে মিতালী করি”

0
223

আজাদ জামাল:

কথাটি শুনে অনেকে চমকে উঠতে পারেন আবার অনেকে রাগও করতে পারেন। আসলেই আমি মানুষটা বেশি আত্মবিশ্বাসী ও পজেটিভ মনের।সারা বিশ্বের মানুষের নাভিশ্বাস তোলা মরণব্যাধি ও অদৃশ্য শত্রু করোনা ভাইরাসের সাথে মিতালী করা এ আবার কেমন কথা? আসুন ব্যাপারটার একটু গভীরে যায়। বিশ্বের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসের প্রকোপ দিন দিন বেড়েই চলেছে। ইতিমধ্যে এক কোটির মতো মানুষ আক্রান্ত এবং চার লাখের কাছাকাছি মৃত্যু। বাংলাদেশেও ইতিমধ্যে পঞ্চাশ হাজার আক্রান্ত এবং ছয় শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

দীর্ঘ দুই মাস আমরা লকডাউনে ছিলাম। এই লকডাউন কেউ মেনেছি আবার কেউ মানিনাই। কে মেনেছে কে মানিনাই সেই তর্কে আমি যাব না, আমি শুধু এতটুকুই বলতে পারি বাংলাদেশে লকডাউনে থাকার আর সুযোগ নেই। গত দুই মাসে আমার সামান্য অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, ইনশাআল্লাহ এদেশে করোনা ভাইরাসে মৃত্যু অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক কম হলেও হতে পারে। আগামী কাল থেকে যেহেতু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাড়া সবকিছু স্বাস্থ্য নির্দেশনা মেনে খুলে দেওয়া হচ্ছে সেহেতু আমাদের ধরে নিতে হবে এদেশের ষোল কোটি মানুষ আমরা সবাই আক্রান্ত হবো।

কিন্তু এই ভাইরাসকে আর ভয় করার সুযোগ নেই, সেই লকডাউনের শুরু থেকে ব্যক্তিগত ভাবে আমি অফিসিয়ালি/আনঅফিসিয়ালি প্রতিদিন ব্যাংকের কাজ করেছি। স্বাস্থ্য নির্দেশিকা মেনে কাল থেকে যেহেতু পুরোদমে কাজ করতে হবে সেহেতু সবাইকে ভয়কে জয় করে কাজে নেমে যেতে হবে। ইতিমধ্যে সরকার বিভিন্ন জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে এবং সেই মোতাবেক আমাদের চলতে হবে।

ভৌগলিক ও প্রাকৃতিকভাবে এদেশের মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বিশ্বের যেকোনো দেশের মানুষের চেয়ে অনেক ভাল। এদেশের মানুষের সাথে ভাগ্যের অনেক সহায়তা আছে। বিশ্বের বড়বড় ঘুর্ণিঝড় সাইক্লোন ও জলোচ্ছ্বাসের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগের সাথে যুদ্ধ করতে করতে এখন আর এ সমস্ত দুর্যোগ বা সতর্ক সংকেতে মানুষ তেমন ভয় পাই না। এই ক্রান্তিকালে ও মহামারিতেও আমি তাই দেখছি। লকডাউনের শুরু থেকে কয়েকদিন মাত্র ঘরে ছিল। 

এখন মানুষ আর ঘরে বসে নেই, সবাই কিন্তু রাস্তায়, অফিস, আদালতে। যেহেতু করোনা ভাইরাস শহর,নগর,বন্দর ও গ্রামেগঞ্জে ছড়িয়ে পড়েছে সেহেতু এই মুহুর্তে করোনা ভাইরাসকে আর ভয় পেয়ে কি হবে? তবে যাদের শরীরে বিভিন্ন রোগ রয়েছে তাদের জন্য এই বার্তা নয়,তারা অবশ্যই সাবধানে থাকবেন। আমার এই লেখা একান্ত ব্যক্তিগত, যদি স্বাস্থ্যঝুঁকি অন্যান্য স্বাস্থ্য সুরক্ষার সাথে এই লেখাটি সাংঘর্ষিক হয় তবে আমি এই লেখাটি মুছে ফেলবো। পরিশেষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুদক্ষ ও বিচক্ষণ নেতৃত্বে ইনশাআল্লাহ আমরা এই দুর্যোগ মোকাবেলায় জয়ী হয়ে আবারো স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবো এটা আমার দৃঢ় বিশ্বাস। মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদের সহায় হোন।।

লেখক: ব্যাংকার, সংগঠক ও সমাজসেবক