৩৫০ লাশ দাফনের পর ৫০ শয্যার আইসোলেশন সেন্টার গড়ার উদ্যোগ গাউসিয়া কমিটির

0
404

পিনিউজ ডেস্ক: করোনাকালে চট্টগ্রামসহ সারা দেশে সাড়ে তিনশ’ মরদেহ কাফন, গোসল ও দাফনের পর ৫০ শয্যার আইসোলেশন সেন্টার গড়ার উদ্যোগ নিয়েছে গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ। দাফনের পাশাপাশি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস, মুমূর্ষ রোগীদের অক্সিজেন সিলিন্ডার, টেলিমেডিসিন সেবাও দিয়ে আসছে সংগঠনটি।

বুধবার (২৪ জুন) চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে গাউসিয়া কমিটির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট মোছাহেব উদ্দীন বখতেয়ার আইসোলেশন সেন্টারের বিষয়টি তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, মহামারী করোনার প্রাদুর্ভাবের পর সাধারণ মানুষ ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে যখন আপনজনের মরদেহ ফেলে পালিয়ে বেড়াচ্ছে, করোনায় আক্রান্ত রোগী অক্সিজেন না পেয়ে তীব্র শ্বাসকষ্টে যখন মারা যাচ্ছে তখন আধ্যাত্মিক সংগঠন গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ মানবতার সেবায় কাজ করেছে। মার্চের মাঝামাঝিতে সংগঠনটি আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ে চট্টগ্রামে প্রথম মৃতের কাফন-দাফন কার্যক্রমের সূচনা করে। এজন্য সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বিভাগীয় কমিশনার, মেয়র, সিভিল সার্জন ও সহকারী পুলিশ কমিশনারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তাদের সহযোগিতার আশ্বাস পেয়ে এ কার্যক্রম শুরু করে।

বর্তমানে গাউসিয়া কমিটির চট্টগ্রামে ৭০০ স্বেচ্ছাসেবক কর্মীসহ সারা দেশে ২ হাজার স্বেচ্ছাসেবক কাজ করছেন বলে মোছাহেব উদ্দীন বখতেয়ার তার লিখিত বক্তব্যে তুলে ধরেন।

এসময় তিনি চট্টগ্রামসহ দেশের সামর্থবান ও বিত্তবান ব্যক্তিদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে বলেন, বিত্তবানরা এগিয়ে না আসলে এ কার্যক্রম পরিচালনা সম্ভব নয়। একই সঙ্গে এ মহামারী মোকাবেলা সরকারের একার পক্ষেও সম্ভব নয়। এক্ষেত্রে আমাদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে।

তিনি আনোয়ারা ফাউন্ডেশন, ওয়েল গ্রুপ, রাবেয়া-বশর জনকল্যাণ ট্রাস্ট, লায়ন্স ক্লাবসহ বিভিন্ন সংস্থা, সংগঠন ও ব্যক্তি পর্যায়ে যারা সহযোগিতা করেছেন তাদের ধন্যবাদ জানান। বিশেষ করে রাবেয়া-বশর জনকল্যাণ ট্রাস্ট কর্তৃক আইসোলেশন সেন্টারের জন্য যে ভবন দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তার জন্য তাকে সাধুবাদ জানান।

এ সময় গাউসিয়া কমিটির চেয়ারম্যান পেয়ার মোহাম্মদ আইসোলেশন সেন্টারের জন্য সরকারের এবং স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগের সহযোগিতা কামনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আনজুমান এ রহমানিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্টের সিনিয়র সহ-সভাপতি মুহাম্মদ মহসিন, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশের মহাসচিব শাহজাদ ইবনে দিদার, যুগ্ম মহাসচিব মাহবুবুল হক খান, নগর সদস্যসচিব ছাদেক হোসেন পাপ্পু, উত্তর জেলা সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, দক্ষিণ জেলার সাধারণ সম্পাদক হাবিব উল্লাহ মাস্টার, মিডিয়া সেলের প্রধান অধ্যক্ষ আবু তালেব বেলাল, সদস্য এরশাদ খতিবী, আহসান হাবিব চৌধুরী হাসান, মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ, মাহফুজুর রহমান ও শাহাদাত হোসেন রুমেল প্রমুখ।