আওয়ামীলীগে যোগ দিচ্ছেন মাওলানা আবুল কাশেম নূরী

0
748

পিনিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রণ্টের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ইসলামী ফ্রন্টের চেয়ারম্যান মাওলানা এম এ মান্নানের উপদেষ্টা মাওলানা আবুল কাশেম নূরী আওয়ামী লীগে যোগ দেয়ার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে তার ঘনিষ্টরা জানায়। তবে আওয়ামী লীগে যোগ দেয়ার বিষয়ে মাওলানা আবুল কাশেম নুরীর এখনো পর্যন্ত কোন মতামত জানা যায়নি।

জানা গেছে, মাওলানা আবুল কাশেম নূরী দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের রাজনীতির সাথে যুক্ত থেকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদ প্রার্থী ও চট্টগ্রাম-৮ আসন থেকে ইসলামী ফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে মোমবাতি প্রতীক নিয়ে সংসদ নির্বাচনও করে ছিলেন। এছাড়া ইসলামী ফ্রন্টের বাইরে গিয়ে তরিকত ভিত্তিক সংগঠন আঞ্জুমানে রজভীয়া নুরীয়া বাংলাদেশ নামের একটি সামাজিক সংগঠনের চেয়ারম্যান হিসেবেও তিনি দায়িত্বে রয়েছেন। গত ২৯ ফেব্রæয়ারি চট্টগ্রাম নগরীর জমিয়তুল ফালাহ মসজিদ মাঠে যৌতুক, মাদক ও নারী নির্যাতন বিরোধী মহাসমাবেশে আবুল কাশেম নূরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি। আলোচক ছিলেন মহাজোটের শরীক ও তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী এমপি। উদ্বোধক ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয় মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী। এই অনুষ্ঠানের পর থেকে ইসলামী ফ্রন্টের নেতা কমীদের সাথে মাওলানা আবুল কাশেম নুরীর সাথে বিরোধ চলে আসছিল। তবে ইসলামী ফ্রন্টের চেয়ারম্যান ও মাওলানা এম এ মান্নান ও মহাসচিব মাওলানা এম এ মতিন দীর্ঘদিন ধরে দলীয় পদ দুটি আকড়ে ধরায় সংগঠনে নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি না হওয়ায় তৃণমূলে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে বলে মাওলানা আবুল কাশেম নুরীর অনুসারিদের অভিযোগ। গত ২৩ জুলাই রাঙ্গামাটিতে মাওলানা আবুল কাশেম নূরীর উপর মাহফিলে যুব সেনার নেতা কর্মীরা হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। হামলাকারীরা যুব সেনা ও ছাত্র সেনাকে সন্ত্রাসী সংগঠন দাবি করে বিবৃতি দেন মাওলানা আবুল কাশেম নুরী। এই ঘটনার পর মাওলানা আবুল কাশেম নুরীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন এলাকায় ইসলামী ফ্রন্ট, ছাত্র সেনা, যুবসেনার নেতা কর্মীরা মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। এ ঘটনায় মাওলানা আবুল কাশেম নুরীর পক্ষ থেকে ইসলামী ফ্রন্ট ও ছাত্রসেনা যুবসেনার নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলাও করা হয়েছে। মাওলানা আবুল কাশেম নুরী আওয়ামী লীগে যোগ দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে আঞ্জুমানে রজভীয়া নুরীয়া বাংলাদেশ এর মহাসচিব এডভোকেট আব্দুর রশীদ দৌলতি বলেন, উনি উনার সংগঠনকে বেশী সময় দেন, উনার স্বপ্ন হচ্ছে যৌতুকমুক্ত, মাদকমুক্ত দেশ গড়ার হয়তো সরকারি  সহযোগিতা ছাড়া এটা করা সম্ভব না, সরকারি দলের এমপি মন্ত্রীদের উনার অনুষ্ঠানে দাওয়াত দেয়াতে অনেকে ভাল ভাবে দেখছে না। তবে দল পরিবর্তন করা না করা এটা উনার ব্যক্তিগত বিষয় বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট মহাসচিব মাওলানা এম এ মতিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, নুরী সাহেব ইদানিং দলীয় কোন কর্মকান্ডে আসে না, উনি নিজেই একটি সংগঠন করেছে সেটতে বেশীভাগ সময় দিয়ে যাচ্ছেন, তবে সরকারি দলের এমপি, মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীদের উপর ভার করে এখন চলছে, তবে আমাদের পার্টি থেকে উনাকে এখনো পর্যন্ত বহিস্কার করা হয়নি এবং উনি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ পত্র দেয়নি। উনি যদি আওয়ামী লীগে যোগ দেয়া উনাকে ধরার রাখবে কে, তবে উনি একজন ভাল বক্তা হিসেবে আমরা উনকে পছন্দ করতাম। সূত্র: দৈনিক সকালের সময়