আনোয়ারায় লোকালয়ে জোয়ারের পানি, প্লাবিত উপকূলের ঘর-বাড়ি

0
143
 এস এম গোফরান, আনোয়ারা(চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি।
আনোয়ারার রায়পুর ইউনিয়নের বার আউলিয়া, দক্ষিণ গহিরা, ফকিরহাট উপকূলীয় অঞ্চলসহ উপজেলার বেশকিছু গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টি এবং সাগর উত্তাল হওয়ায় বেড়ীবাঁধের ভাঙ্গা অংশ দিয়ে জোয়ারের পানিতে লোকালয়ের শত শত ঘরবাড়িসহ রাস্তাঘাট, কবরস্থান, পুকুর, ফসলি ক্ষেতখামার পানিতে ডুবে গেছে।
রায়পুর ইউনিয়নের ভুক্তভোগী আছহাব উদ্দীন মালেকীর সাথে কথা হলে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, উপকূলীয় এলাকায় জন্ম গ্রহণ করাটায় কি আমাদের অপরাধ! স্থানীয়দের অভিযোগ যথাসময়ে টিকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণ না করায় বছরের পর বছর এই ভোগান্তির স্বীকার হতে হয় রায়পুর ইউনিয়নের বাসিন্দাদের।
এছাড়াও উপজেলার আনোয়ারা সদর ইউনিয়ন পরিষদ, ভূমি অফিস, ডুমুরিয়া,তৈলারদ্বীপ, কৈনপুরা,মহতরপাড়া সহ বেশ কয়েকটি গ্রাম জোয়ারের পানিতে থৈ থৈ করছে। এসব এলাকার জনগণকে অবর্ণনীয় কষ্টে দিন যাপন করতে হচ্ছে। অনেকেই প্রয়োজনীয় কাজে হাটু থেকে কোমর পানি পাড়ি দিয়ে গন্তব্যে পৌঁছাচ্ছেন, কেউবা যাচ্ছেন জীবিকার তাগিদে। অন্যদিকে রান্নাবান্না করতেও দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। অনেকটাই গৃহবন্দী হয়ে পড়েছেন এসব এলাকার জনগণ।
উল্লেখ্য, এখনও পর্যন্ত পৌঁছায়নি সরকারি-বেসরকারি কোনো ত্রাণ সহায়তা। এব্যাপারে রায়পুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জানে আলম আক্ষেপ করে বলেন রায়পুর ইউনিয়নের প্রাণের দাবী বেড়িবাঁধ সংস্কার না করায় এই দূর্ভোগের স্বীকার হচ্ছেন স্থানীয়রা সেইসাথে টিকাদারী প্রতিষ্ঠানের গাফিলতির কথাও অকপটে স্বীকার করেন। এই দূর্যোগময় মুহূর্তে জনদূর্ভোগে কোনো উদ্যোগ নিয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন উপজেলা প্রশাসনের সাথে কথা হয়েছে শ্রীঘ্রই ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হবে।