রাউজানের হলদিয়ার আমিরহাটের পাশে ১০দিন ব্যাপী শাহাদাতে কারবালা মাহফিল সম্পন্ন

0
53

রাউজানের হলদিয়ার আমিরহাটের পাশে নিজামুদ্দিন আউলিয়া জামে মসজিদে ৯তম ১০দিন ব্যাপী শাহাদাতে কারবালা মাহফিল ২০২০ইং পরিচালনা পর্ষদের আয়োজনে প্রতিদিন বাদে আসর থেকে পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান জনাব মাওলানা সৈয়্যদ মুহাম্মদ আলী আকবর তৈয়্যবীর সভাপতিত্বে অনুষ্টিত হয়। এতে ১ম দিবসে উদ্ধোধন করেন গাউসিয়া কমিটির হলদিয়া ইউনিয়ন শাখার সাবেক সভাপতিও গর্জনীয়া ফাজিল ডিগ্রী মাদরাসার উপাধ্যক্ষ আল্লামা কাজি মুহাম্মদ সাঈদুল আলম খাকী মঃজিঃআঃ। প্রধান অতিথি ছিলেন রাউজান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও সমাজ সেবক জনাব আলহাজ এ কে এম এহেসানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল সাহেব, বিশেষ অতিথি ছিলেন রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ জনাব আলহাজ্ব এস এম বাবর সাহেব, ও বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও আওয়ামী লীগ নেতা জনাব আলহাজ মোহাম্মদ মাহবুবুল আলম সাহেব, রাউজান সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ মোহাম্মদ নুরুল আমিন সাহেব, রাউজান ভুমি অফিস কর্মকর্তা জনাব এস এম লিটন, নিয়মিত অতিথি ছিলেন গর্জনীয়া ফাজিল ডিগ্রী মাদরাসার আরবী শিক্ষক হজরত মাওলানা মুহাম্মদ সোলায়মান মকবুলী সাহেব মঃজিঃআঃ,এতে উদ্ধোধক ছিলেন আমিরহাট ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক বিশিষ্ট তরুন সমাজ সেবক আলহাজ মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন, এতে প্রধান অতিথি ও প্রধান বক্তা হিসেবে অন্যান্য দিবসে ধারাবাহিক উপস্হিত ছিলেন চট্রগ্রাম উত্তর জেলা গাউসিয়া কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল্লামা এস এম ইয়াসিন হোসাইন হায়দারী,রাউজান উত্তর উপজেলা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের সাধারন সম্পাদক আল্লামা মুহাম্মদ ইদ্রিস আনচারী, আল্লামা আবু তৈয়াব ফারুকী,আল্লামা মুহাম্মদ শামসুল আলম হেলালী ছাহেব মঃজিঃআঃ, আল্লামা হাফেজ কারি মহিউদ্দিন আল কাদেরী, আল্লামা মুহাম্মদ সরোয়ার আলম আল কাদেরী, আল্লামা মুহাম্মদ হারুনুর রশিদ আল কাদেরী, আল্লামা কাজি মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন আল মাইজভান্ডারী, আল্লামা মুহাম্মদ আবুল বশর মাইজভান্ডারী, আল্লামা মুহাম্মদ আব্দুল মতিন আল কাদেরী, চট্রগ্রাম জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া শরীফের প্রাক্তন ছাত্র, প্রখ্যাত নাতখাঁ ইসলামী চিন্তাবিদ আলহাজ্ব মাওলানা মুহাম্মদ তারেখ আবেদীন কাদেরী মঃজিঃআঃ,আল্লামা মুহাম্মদ জাফর উদ্দিন কামালী মাইজভান্ডারী, আল্লামা মুহাম্মদ কুতুব উদ্দিন রেজবী, আল্লামা মুহাম্মদ জাফর আলম নুরী, আল্লামা মুহাম্মদ রাশেদুল করিম আল কাদেরী, আল্লামা মুহাম্মদ বাহাউদ্দিন ওমর আল কাদেরী, আল্লামা নাসির উদ্দিন কাদেরী, আল্লামা মুহাম্মদ দিদার আলম আল কাদেরী, আল্লামা মুহাম্মদ মোরশেদ রেজা কাদেরী, আল্লামা মুহাম্মদ নেজাম উদ্দিন তৈয়বী, আল্লামা মুহাম্মদ মনচুর উদ্দিন নেজামী,আল্লামা আলহাজ মোহাম্মদ শহিদুল্লাহ কাদেরী, হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ নুরুল আবসার মাইজভান্ডারী,মাওলানা মুফতী সালাহউদ্দিন কাদেরী, অন্যান্য দের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন আলহাজ ফরিদ আহমদ সাহেব, আলহাজ মাওলানা মুহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, জনাব মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম সিকদার, জনাব মাওলানা মুহাম্মদ ইউসুফ তৈয়বী, মাওলানা কপিল উদ্দিন, মাওলানা মুহাম্মদ জিলহাজ উদ্দিন কাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ জুনায়েদ কাদেরী,মাওলানা তাজ মোহাম্মদ রেজভী, ম্ওলানা মোহাম্মদ রহিম উদ্দিন কাদেরী, হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ আবুল কাসেম সাহেব, মাওলানা হাফেজ মোহাম্মদ আবু সালেহ, মাওলানা মুহাম্মদ কাজিম রেজা হোসাইনী,জনাব মোহাম্মদ ফরিদ মিয়া চৌধুরী, জনাব জাহাঙ্গীর পাশা সাহেব, মাষ্টার মুহাম্মদ ফরিদুল আলম, জনাব মোহাম্মদ মাসুদ পারভেজ, মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম,জনাব এস এম আহমদ উল্লাহ, প্রবাসি মুহাম্মদ নাসির উদ্দিন, মাওলানা মুহাম্মদ ইমরান,শায়ের মাওলানা মুহাম্মদ ওসমান গনী,শাযের হাফেজ মুহাম্মদ মিনহাজ উদ্দিন,শায়ের মোহাম্মদ বোরহান উদ্দিন, মোহাম্মদ ওমর ফারুক, মোহাম্মদ ওসমান গনী ফোরকান, জনাব মোহাম্মদ সালেহ আকবর সাহেব,হাফেজ মুহাম্মদ আমজাদ হোসেন, মোহাম্মদ আলাউদ্দিন ও সৈয়্যদ মুহাম্মদ মঈন রেজা হাসনাইন প্রমুখ।। মাহফিলে বক্তারা ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ একে এম এহেসানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল সাহেব বলেন মানব জাতির সব কিছুরই মুল হলো ঈমান, যার ঈমান থাকবে তার সব আমল ও ইবাদত বন্দেগী কাজে আসবে একদিন, আর যার ঈমান ঠিক নেই তার কোন কিছুই কাজে আসবেনা। তাই কারবালার ময়দানে ইমামে আলী মক্বাম শাহেন শাহে কারবালা হজরত ইমাম হুসাইন রাঃ স্বপরিবারে বেঈমান ও মোনাফিকদের সাথে মোকাবেলা করে শাহাদাত বরন করেন । কারবালার ময়দানে জালিম এজিদ বাহিনীর অন্যায় অবিচার জের জুলুম কে ধ্বংস করতে ইমামে আলী মক্বাম হজরত হুসাইন রাঃ জিহাদ করে গেছেন তারপরেও অন্যায় কে সমর্থন করেন নাই। প্রিয় নবীজি হজরত রাসুলে পাক দঃ ও আহলে বায়তে রাসুল দঃ এর ভালবাসার মধ্যে পরিপুর্ন ঈমান ইসলামের মুল নীতি বিদ্যমান।নামাজ কালাম হজ্ব ও রোজা দান সদকা এগুলো হলো আমল, আমলের চেয়ে কোটিগুন বেশী প্রয়োজন ও দামী ঈমান, তাই ঈমান কে মজবুত ও দৃঢ় করতে ইশকে মুস্তাফা দঃ ও হুব্বে মুস্তফা দঃ থাকা নিন্তান্তই জরুরী, আহলে বায়তের ভাল বাসাতে রয়েছে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের অন্যতম উসিলা।তাই আহলে বায়তে রাসুল দঃ এর আদর্শ কে বুকে ধারন করে সত্যিকারের একেকজন মুসলমান নর-নারির মুক্তির জন্য শাহাদাতে কারবালার স্মরন একান্তই অপরিহার্য। বক্তারা আরো বলেন কারবালার যুদ্ধে হক বাতিলের পরিচয়ে ও সত্য মিথ্যার পার্থক্ষ্য নির্নয়ে হজরত ইমাম হুসাইন রাঃ সহ পবিত্র আহলে বায়তে রাসুল দঃ গনের শাহাদাত বরন ছিল এক ঐতিহাসিক হ্নদয বিদারক ও মর্মান্তিক ট্রেজাডি। পরে মিলাদ কিয়াম মোনাজাতের পর তাবরুক বিতরন করা হয়। বিজ্ঞপ্তি।