মাওলা আলী (রা.) শাহাদাত দিবস পালন ও রমযানের তাৎপর্য শীর্ষক আলোচনা সভা

0
63

এম এ আক্কাছ নূরী :
ইমাম শেরে বাংলা (রাহ.) রিসার্চ একাডেমির ব্যবস্থাপনায় হযরত মাওলা আলী (রা.)-এর শাহাদাত দিবস উপলক্ষে মাহে রমযানের তাৎপর্য শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, হযরত আলী (রাঃ) ছিলেন প্রবল সাহসী। যেই রাতে মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মক্কা ছেড়ে মদীনায় হিজরত করেছিলেন, সেই রাতে শাহাদাত হওয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা থাকা সত্তে¡ও তিনি নবীজীর বিছানায় শুয়েছিলেন। তিনি ছিলেন একজন শক্তিশালী যোদ্ধা। ইসলামের পক্ষে অসি হাতে বীরত্বের জন্য মহানবী (দ.) তাঁকে ‘আসাদুল্লাহ’ (আল্লাহর সিংহ) উপাধি দেন। এছাড়া তাঁকে আমিরুল মু’মিনীন নামেও ডাকা হতো। অনেকে নিশ্চয়ই জানেন, ইসলামে তাৎপর্যপূর্ণ এক তলোয়ারের নাম ‘জুলফিকার’। বদর যুদ্ধে নিহিত ৭০ জন কাফেরের ৩৬ জনই তিনি ক্বতল করেছিলেন। ওই যুদ্ধে বিশেষ বীরত্বের জন্য মহানবী (দ.) তাঁকে বিশেষ তলোয়ার ‘জুলফিকার’ উপহার দেন। খাইবারের সুরক্ষিত কামুস দুর্গ জয় করলে হযরত নবী (দ.) তাঁকে আসাদুল্লাহ বা ‘আল্লাহর সিংহ’ উপাধিতে ভূষিত করেন। এছাড়া নবী করীম (দ.) গাদীর খুমের ভাষণে তাঁকে মু’মিনদের ‘মওলা’ হিসেবে আখ্যায়িত করেন।
গত ৪ মে মঙ্গলবার চট্টগ্রামের একটি অভিজাত রেস্টুরেন্টে রিসার্চ একাডেমির চেয়ারম্যান আল্লামা মুহাম্মদ ইউনুস রেজভীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট লেখক ও গবেষক, অধ্যক্ষ আল্লামা বদিউল আলম। প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ আল্লামা গোলাম মুস্তাফা মুহাম্মদ নুরুন্নবী আলক্বাদেরী। রিসার্চ একাডেমির যুগ্ম সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ ইকবাল হুসাইন আলক্বাদেরীর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, অধ্যক্ষ আল্লামা মুহাম্মদ আবদুল আউয়াল ক্বাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ জিয়াউল হক্ব রিজভী ও মাওলানা মুহাম্মদ তারেকুল ইসলাম ক্বাদেরী।
আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা মুহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম ক্বাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ রায়হানুল ইসলাম আলক্বাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ শরফুদ্দীন আকবরী প্রমূখ।